• ঢাকা
  • শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২০, ১২:১২ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২০, ১২:১২ এএম

কানাডা ও ফিজিওতে পাঠানোর নামে প্রতারণা

জাগরণ প্রতিবেদক
কানাডা ও ফিজিওতে পাঠানোর নামে প্রতারণা
র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ● সংগৃহীত

রাজধানীর বনানীতে অফিস খুলে কানাডা ও ফিজিতে ভাল চাকরির প্রলোভনে লোক পাঠানোর নামে প্রতারণার দায়ে ছয়জনকে আটকের পর বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ড দিয়েছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকালে বনানীর ৪ নম্বর রোডের ‘ড্রিম ভিসা কনসালটেন্সি’ নামের একটি কথিত প্রতিষ্ঠানে র‌্যাব-৩ এই অভিযান চালায়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।

দণ্ডপ্রাপ্ত ছয়জন হলেন— প্রতিষ্ঠানটির মালিক তোফাজ্জল হোসেন, কর্মী জুঁই আক্তার, সানজিদা আক্তার, সাদিয়া আক্তার, নাইমা জুম ও স্বপ্না আক্তার।

ম্যাজিষ্ট্রেট পলাশ কুমার বসু জানান, প্রতিষ্ঠানটির বিদেশে লোক পাঠানোর কোনও লাইসেন্স বা বৈধ কাগজপত্র ছিল না। এরপরও তারা তাদের ওয়েবসাইট ও সামাজিক মাধ্যমে কানাডা ও ফিজিতে লোক পাঠানোর কথা বলে বিজ্ঞাপন দিতো। ওই বিজ্ঞাপন দেখে তাদের অফিসের ঠিকানায় যারা যেত তাদের বসিয়ে মগজ ধোলাই (কাউন্সেলিং) করা হতো। তাদের পাসপোর্ট ও বিদেশ পাঠানোর নাম করে টাকা হাতিয়ে নিতো।

 

তিনি বলেন, চক্রটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে নির্দিষ্ট সময় পরপর অফিস বদল করতো। ভুক্তভোগীরা তাদের আর খুঁজেও পেতো না।

র‌্যাব জানায়, অভিযানের সময় ওই অফিসে ৩২ টি পাসপোর্ট, ভুয়া চুক্তিপত্র, ফিজিতে পাঠানোর ভুয়া ডিমান্ড লেটার জব্দ করা হয়। অভিযোগ স্বীকার করায় প্রতিষ্ঠানটির মালিক তোফাজ্জলকে ছয় মাসের কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ১ মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। অন্য আসামিদের প্রত্যেককে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়। টাকা অনাদায়ে প্রত্যেককে ৭ দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। সেই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে দেয়ার আদেশ দিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট।

কেএপি