• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: মে ১৯, ২০১৯, ০৫:৪৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৯, ২০১৯, ০৫:৪৫ পিএম

আগাম টিকিট বিক্রির ধুম পড়েনি মহাখালী টার্মিনালে

জাগরণ প্রতিবেদক
আগাম টিকিট বিক্রির ধুম পড়েনি মহাখালী টার্মিনালে
রাজধানীর মহাখালী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল - ছবি : জাগরণ

পবিত্র ঈদুল ফিতর ঘিরে এখনও আগাম টিকিট বিক্রির ধুম পড়েনি রাজধানীর মহাখালী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনালে। টিকিট কাউন্টার পরিচালনাকারীদের ভাষ্য- রমজান মাসের ২০ তারিখ থেকে আগাম টিকিট বিক্রির ধুম পড়বে।

শনিবার রাতে, রোববার সকালে ও দুপুরে মহাখালী বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, কাউন্টারগুলোয় নিয়মিত যাত্রীরা আসছেন, টিকিট নিয়ে বাসে চড়ছেন। কিন্তু ঈদে ঘরমুখ হওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে কেউ টিকিট সংগ্রহ করছেন না। হাতে গোনা কয়েকজনকে পাওয়া গেছে, যারা খোঁজ নিতে এসেছিলেন টিকিট ছাড়া হয়েছে কি-না বা কত দামে বিক্রি হচ্ছে, কখন কখন বিক্রি করা হবে ইত্যাদি তথ্য।

ঢাকা থেকে সিলেট বিভাগের বিভিন্ন জেলায় চলাচলরত এনা ট্রান্সপোর্টের কাউন্টার ম্যানেজার জসিম উদ্দিন দৈনিক জাগরণকে বলেন, এখনও ছুটি-ছাঁটার সময় ঘনিয়ে এলেই আমাদের এখানে ভীড় বাড়ে। ২০ রমজান থেকে পুরোদমে ভিড় শুরু হবে।

সরেজমিনে টার্মিনালের ভেতরে যাত্রী অপেক্ষার স্থান ও বাইরে যাত্রীর অপেক্ষার স্থান একদম ফাঁকা দেখা গেছে। কাউন্টারগুলোও একদম ফাঁকা। অধিকাংশ কাউন্টারে কর্তব্যরত অবস্থায় কাউকে পাওয়া যায়নি। টার্মিনালে পার্কিং করা বেশ কিছু বাস ধোয়া-মোছার কাজ করছিলেন শ্রমিকরা। একইসঙ্গে কারিগররা মেরামত করছিলেন ইঞ্জিনসহ অন্যান্য যন্ত্রাংশ।

এনা ট্রান্সপোর্টের কাউন্টার ম্যানেজার জসিম উদ্দিন বলেন, সিলেট বিভাগের জেলাগুলোয় এনা ট্রান্সপোর্টের ৮০ থেকে ৮৫টি বাস চলাচল করে।

গাইবান্ধা, রংপুর, বুড়িমারী রুটে চলাচলকারী এসআর ট্রাভেলস এর কাউন্টার মাস্টার আমির হোসেন দৈনিক জাগরণকে বলেন, মহাখালীতে আমাদের মাত্র ৭-৮টি বাস আছে। এসবের টিকিট এখনও বুকিং হয়নি।

আরএম/ এফসি

Space for Advertisement