• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: জুন ৭, ২০১৯, ০৮:২১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ৭, ২০১৯, ০৮:২৫ পিএম

বিমানের ঘটনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের চার সদস্যের তদন্ত কমিটি

জাগরণ প্রতিবেদক
বিমানের ঘটনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের চার সদস্যের তদন্ত কমিটি

বিমানের ভিভিআইপি ফ্লাইট বোয়িং ৭৮৭ এর পাইলট ফজল মাহমুদের পাসপোর্ট ছাড়া হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন অতিক্রমসহ পুরো ঘটনা তদন্তে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ চার সদস্যোর তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নাসিমা বেগমকে কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে।

কমিটিকে জরুরি ভিত্তিতে তদন্ত করে তিন কর্মদিবসের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

শুক্রবার (৭ জুন) সন্ধ্যায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এ বিষয়ে এক আদেশ জারি করে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব গাজী তারিক সালমনের স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়- ‘‘পাসপোর্ট ছাড়া পাইলট ফজল মাহমুদের দোহা ভ্রমণের কারণ অনুসন্ধান করবে কমিটি। একইসঙ্গে কমিটি শাহজালাল বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের দায়িত্বে অবহেলার কারণ নিরূপণ করবে। চিহ্নিত করবে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের ত্রুটি।’’ 

পাইলট ফজল মাহমুদ- সংগৃহীত

তদন্ত কমিটির অপর সদস্যরা হচ্ছেন- স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের যুগ্ম সচিব (রাজনৈতিক-৪) হেলাল মাহমুদ শরীফ, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মুস্তাকিম বিল্লাহ ফারুকী। কমিটির সদস্য সচিব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের যুগ্ম সচিব (রাজনৈতিক-১) জাহাঙ্গীর আলম।

সফররত প্রধানমন্ত্রীকে দেশে ফিরিয়ে আনতে নিজের পাসপোর্ট ছাড়া বিমানের বোয়িং ৭৮৭ মডেলের ড্রিমলাইনার নিয়ে কাতার যান পাইলট ফজল মাহামুদ। পাসপোর্ট না থাকায় ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রাতে আটক হন তিনি। বিশেষ ব্যবস্থায় বৃহস্পতিবার (৬ জুন) তার পাসপোর্ট কাতার পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় ভিভিআইপি ফ্লাইট থেকে প্রত্যাহার করা হয়। তার স্থানে শুক্রবার (৭ জুন) সন্ধ্যায় নতুন পাইলট আমিনুলকে পাঠনো হয়েছে।

এমএএম/এসএমএম

Space for Advertisement