• ঢাকা
  • বুধবার, ২২ মে, ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: এপ্রিল ২৮, ২০১৯, ১২:৩৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২৮, ২০১৯, ০৭:১৭ পিএম

চাঁদপুরে ঝরে গেল ৬ প্রাণ

চাঁদপুর সংবাদদাতা 
চাঁদপুরে ঝরে গেল ৬ প্রাণ
দুর্ঘটনাকবলিত সিএনজিচালিত অটোরিকশা, স্বজনের আহাজারি (ডানে) - ছবি : জাগরণ

৮ বছর বয়সী রুমান। প্রতিদিনের মতো আজ রোববার সকালেও বিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে মায়ের হাত ধরে ঘর থেকে বের হয়। বিদ্যালয়ের নাম কালিয়াপাড়া বিদ্যানিকেতন। প্রবাসী বাবা ছুটিতে এসে সাতসকালে আদরের সন্তান ও স্ত্রীকে এভাবে হারানোর দৃশ্য কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না।

বলছিলাম চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার কাকৈরতলা বাজারসংলগ্ন স্থানে ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনার কথা। শিশুর রুমানের মা জান্নাতুল ফেরদৌস হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যান। ঘটনাস্থলে শিশু রুমানসহ আরো ৩ জনের প্রাণ ঝরে যায়। 

রুমানের বাবা খবর পেয়ে দুর্ঘটনাস্থলে এসে নিজের ছেলেকে দেখে কোনোভাবেই তা মেনে নিতে পারছেন না। চিৎকার দিয়ে কান্না করে বলছেন, আমার আদরের সন্তানকে ছাড়া আমি বাড়ি যাব না।

মা ও ছেলে কচুয়া উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা।

নিহত ৫ জনের একজন রঞ্জিত চন্দ্র। তিনি কালিয়াপাড়া পঞ্চগ্রাম আজিজুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী। তার গ্রামের বাড়ি কচুয়া উপজেলার আশরাফপুর ইউনিয়নের পিপলকরা গ্রাম। স্কুল থেকে মাত্র আধা কিলোমিটার দূরে তাকে প্রাণ হারাতে হয়।

নিহত আবুল কালাম মেয়ের বাড়ি থেকে নিজের বাড়িতে আসার পথে এ দুর্ঘটনার শিকার হন। তার ছেলে বাবুল বাবার মৃতদেহের পাশে এসে বিলাপ ধরে কান্না করছেন। কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলছেন, বাবা তুমি এভাবে যেতে পারো না।

বৃদ্ধ ফখরুল ইসলাম একটি পারিবারিক মামলায় হাজিরা দিতে চাঁদপুর আদালতে রওনা হয়েছিলেন। আজ হাজিরায় অনুপস্থিত থাকায় হয়তো এই মৃত ব্যক্তির নামে আদালত ওয়ারেন্ট ইস্যু করতে পারে। কিন্তু নিয়তির কাছে আইনের শাসন শুধু কাগজে-কলমে থাকবে।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মো. শাহজাহান নামের আরেক যাত্রী মারা যান। সে জগতপুর এলাকার বাসিন্দা। 

দুর্ঘটনাকবলিত সেই সিএনজিচালিত অটোরিকশার রেজিস্ট্রেশন ছিল না। এতে মোট ৭ জন যাত্রী ছিল। সকল নিয়ম তোয়াক্কা করে চলছিল এটি। চালকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার নাম জানা না গেলেও সে শাহরাস্তি উপজেলার বাসিন্দা। তিনি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। 

জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান প্রত্যেক পরিবারকে ৩০ হাজার টাকা করে অনুদান দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। খবর শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহ আলম ও মেহার উত্তর ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান মো. মনির হোসেন। তারপর একে একে ঘটনাস্থলে আসেনন সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শেখ রাসেল। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন শাহরাস্তি উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি উম্মে হাবিবা মিরা ও হাজিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়ুয়া।

মৃতদেহগুলো ময়নাতদন্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। সেই অপেক্ষায় পরিবারগুলো।

উল্লেখ্য, চাদঁপুরের শাহরাস্তি উপজেলার কাকৈরতলা বাজার সংলগ্ন এলাকার চাঁদপুর-কুমিল্লা মহাসড়কে বাস ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হয়। রোববার (২৮ এপ্রিল) সকালে এই মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের সবাই সিএনজি অটোরিকশার যাত্রী।

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো শাহ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘কাকৈরতলা বাজার সংলগ্ন এলাকায় কর্ডোভা পরিবহনের একটি বাস ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে ৬ জন নিহত হয়েছেন। দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও সিএনজি অটোরিকশা জব্দ করা হয়েছে।

এফসি

Space for Advertisement