• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: অক্টোবর ২১, ২০১৯, ০১:৪৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ২১, ২০১৯, ০২:০৩ পিএম

ভোলা শান্ত, ৫ হাজার জনকে আসামি করে মামলা 

ভোলা সংবাদদাতা 
ভোলা শান্ত, ৫ হাজার জনকে আসামি করে মামলা 
ভোলায় পুলিশ-জনতার সংঘর্ষ- ফাইল ছবি

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় এক যুবকের ‘হ্যাকড হওয়া’ ফেসবুক আইডি থেকে মহানবীকে (সা.) নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও স্থানীয়দের সংঘর্ষের ঘটনায় অজ্ঞাত ৫ হাজার জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। 

রোববার (২০ অক্টোবর) রাতে বোরহানউদ্দিন থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবিদ হোসেন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।  সোমবার (২১ অক্টোবর) সকাল থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওই এলাকায় সভা-সমাবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে জেলা প্রশাসন। 

পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় এ মামলা করা হয়েছে বলে জানান বোরহানউদ্দিন থানার ওসি এনামুল হক। তিনি বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

ভোলার সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) শেখ সাব্বির হোসেন জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় ৩০ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১০ জন চিকিৎসাধীন।এ ঘটনায় পুলিশ এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে আটক করেছে। সমাবেশস্থলসহ গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

সংঘর্ষে আহত ৪১ জনকে ভোলা সদর হাসপাতাল এবং ৩০ জনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং বাকিদের বোরহানউদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আহতদের বেশিরভাগই গুলিবিদ্ধ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চার প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। বিজিবি, পুলিশ ও র‌্যাবের টহল জোরদার করার পর বিকাল থেকেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চলে আসতে শুরু করে।

এ ঘটনায় ভোলা জেলা প্রশাসক স্থানীয় সরকার উপপরিচালক মামুদুর রহমানকে প্রধান করে রোববার তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। 

কমিটির সদস্যরা হলেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইটি অ্যান্ড এডুকেশন) আতাহার মিয়া ও ভোলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল মহসিন আল ফারুক।

এদিকে  ৬ দফা দাবি উল্লেখ করে সোমবার বেলা ১১টায় ভোলা সরকারি স্কুল মাঠে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে তৌহিদি জনতা। পরে স্থানীয় প্রশাসর তাদের দাবি মেনে নিলে সমাবেশ বাতিল করে তারা। ‘সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদের’ ব্যানারে সমাবেশের আয়োজিন করা হয়েছিলো। 

ছয় দফা দাবি হলো:-
১. জেলা ও থানা থেকে এসপি এবং ওসিদের প্রত্যাহার করতে হবে

২. ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফন করার অনুমতি দিতে হবে

৩. আহত লোকজনের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে

৪. নিহত ব্যক্তিদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য দিতে হবে

৫. অভিযুক্ত বিপ্লব চন্দ্র শুভর সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের ফাঁসি দিতে হবে এবং

৬. গ্রেপ্তার করা ব্যক্তিদের মুক্তি দিতে হবে

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) রাতে বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্য (২৫) নামে এক যুবক নিজের ফেসবুক আইডি ‘Biplob Chandra Shuvo’ হ্যাক হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে বোরহানউদ্দিন থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। জিডি করার সময় থানায় অবস্থানকালেই বিপ্লবের নম্বরে একটি কল আসে এবং তার কাছে চাঁদা দাবি করা হয়।

বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে ওসিকে জানানো হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়। প্রযুক্তির সহায়তায় সেদিন রাতেই বিপ্লবের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক ও চাঁদা দাবির দায়ে শরীফ এবং ইমন নামে দুই যুবককে আটক করা হয়।

কিন্তু ওই আইডি থেকে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতকারী কুৎসা রটনার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সমাবেশ ডাকে ‘তৌহিদি জনতা’। সমাবেশে বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে চারজন নিহত হন।

বিএস 
 

আরও পড়ুন