• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: নভেম্বর ৮, ২০১৯, ১২:৩৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ৮, ২০১৯, ১২:৪৭ পিএম

মোংলা বন্দরে ৪ নম্বর সংকেত

সুন্দরবন উপকূলে ধেয়ে আসছে ‘বুলবুল’ 

মোংলা (বাগেরহাট) সংবাদদাতা
সুন্দরবন উপকূলে ধেয়ে আসছে ‘বুলবুল’ 

ক্রমেই সুন্দরবন উপকূলে ধেয়ে আসছে বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। এর প্রভাবে সাগর খুবই বিক্ষুদ্ধ রয়েছে। এজন্য শুক্রবার (৮ নভেম্বর) সকালে মোংলা সমুদ্র বন্দরসহ আশপাশ উপকূলীয় এলাকাকে (চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা) ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। 

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ বর্তমানে মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৬৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে। এটি আগামীকাল শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে আঘাত হানবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। 

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক জানান, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য সাগর এলাকায় অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আরো উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পূর্ব-মধ্য সাগর এলাকায় অবস্থান করছে। 

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র প্রভাবে মোংলা সমুদ্র বন্দরে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। একই সঙ্গে খোলা হয়েছে তিনটি কন্ট্রোল রুম। বন্দরে এই মুহূর্তে মেশিনারী, ক্লিংকার, সার, জিপসাম, পাথর, সিরামিক ও কয়লাসহ দেশি-বিদেশি মোট ১৪টি বাণিজ্যিক জাহাজ অবস্থান করছে। এসব জাহাজে পণ্য খালাসে সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলেও জানান বন্দরের হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখর উদ্দিন। 

‘বুলবুল’র প্রভাবে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে উপজেলা প্রশাসনেও। উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. রাহাত মান্নান জানান, প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের কারণে উপজেলার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় প্রস্তুতিমূলক সভা করা হয়েছে বলেও তিনি জানান। 

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মাহমুদুল হাসান জানান, ঘূর্ণিঝড়ের অবস্থান পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। অবস্থা প্রতিকূল হলে দুবলার চরে জেলেদের মাছ ধরতে অনুমতি দেয়া হবেনা। এরই মধ্যে বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যেতে বলা হয়েছে। 

টিএফ

আরও পড়ুন