• ঢাকা
  • রবিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: নভেম্বর ৮, ২০১৯, ০৮:৩৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ৮, ২০১৯, ০৮:৩৮ পিএম

ভোলায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় প্রস্তুত ১৩ হাজার স্বেচ্ছাসেবী

ভোলা সংবাদদাতা
ভোলায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় প্রস্তুত ১৩ হাজার স্বেচ্ছাসেবী
ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবীরা  -  ছবি : জাগরণ

ভোলায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা প্রশাসন। বুলবুল মোকাবিলায় জেলায় ৬৬৮টি আশ্রয়কেন্দ্র খুলে দেওয়া হয়েছে। গঠন করা হয়েছে ৯২টি মেডিকেল টিম। এছাড়া জেলা সদরসহ ৭ উপজেলায় ৮টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সাধারণ মানুষকে সতর্ক করতে উপকূলে চলছে রেড ক্রিসেন্ট, সিপিপি ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের প্রচারণা।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলা বিষয়ে এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক জানান, ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে ১৩ হাজার স্বেচ্ছাসেবীকে। মজুদ রাখা হয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণসামগ্রী।

ভোলা সিপিপির উপপরিচালক মো. সাহাবুদ্দিন জানান, ঘূর্ণিঝড়ের বিষয়ে মানুষকে জানাতে সিপিপি ও রেড ক্রিসেন্ট কর্মীরা প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। সিপিপির ১০ হাজার ২০০ স্বেচ্ছাসেবী প্রস্তুত রয়েছেন। তিনি বলেন, ভোলায় এখনো ৭ নম্বর সতর্কতা সংকেত চলছে। ঝড়টি কোন দিকে আঘাত হানবে তা এখনো ঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না। তবে ভোলা জেলা ঝুঁকিপূর্ণ।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) রাত থেকে জেলায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছিল। শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে। পুরো জেলা মেঘাচ্ছন্ন।

এনআই

আরও পড়ুন