• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: নভেম্বর ১৪, ২০১৯, ০৩:৫২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ১৪, ২০১৯, ০৩:৫২ পিএম

পাবিপ্রবির ভর্তিযুদ্ধ শুক্রবার : প্রতি আসনে প্রার্থী ২৫

পাবনা সংবাদদাতা
পাবিপ্রবির ভর্তিযুদ্ধ শুক্রবার : প্রতি আসনে প্রার্থী ২৫

আগামীকাল শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত হবে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। দুটি ইউনিটে ১ হাজার ২০টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছেন ২৫ হাজার ৭০৫ জন। অর্থাৎ প্রতিটি আসনের বিপরীতে ভর্তিযুদ্ধে অংশ নেবেন ২৫ জন পরীক্ষার্থী।

শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহণে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষসহ প্রশাসন। এদিকে ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের এবার বিনা খরচে থাকা-খাওয়াসহ (মেহমানদারির ব্যবস্থা) নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে পাবনার প্রশাসনসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান।

এ বছর দুটি ইউনিটে ১ হাজার ২০টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা দিয়েছেন ২৫ হাজার ৭০৫ জন পরীক্ষার্থী। এক্ষেত্রে প্রতি আসনে লড়বেন ২৫ জন পরীক্ষার্থী। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ ইউনিট এবং বিকেল সাড়ে তিনটা থেকে সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত বি ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে শহরের ১৫টি কেন্দ্রে।

এদিকে প্রতিবছর ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে গিয়ে থাকা-খাওয়ার বিষয়ে অভিভাবক-পরীক্ষার্থীদের পড়তে হয় মহাবিপাকে। তবে আশার কথা, এ বছর পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের বিনা খরচে থাকা-খাওয়ার (মেহমানদারি) ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এবং স্থানীয় জেলা ও পুলিশ প্রশাসন। তাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে পাবনার বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এসেছে এমন উদ্যোগে শামিল হতে। কেন্দ্রে আনা-নেয়া করতে গাড়ির ব্যবস্থা, অসুস্থ হলে তাদের স্বাস্থ্যসেবা করতে প্রস্তুত শহরের বেশকিছু স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও।

এ বিষয়ে পাবনা জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ বলেন, ইতিমধ্যে ৪১টি শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রয়োজন হলে আরো পরীক্ষার্থীর থাকার ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছে। সেই সাথে বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান তাদের খাবারের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। পরীক্ষার্থী ও অভিভাবক মিলিয়ে ৫০ হাজার মানুষের মেহমানদারি সুষ্ঠুভাবে করতে সবাই কাজ করছেন বলেও জানান জেলা প্রশাসক।

পাবনাবাসীর এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ডক্টর প্রীতম কুমার দাস বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়, জেলা প্রশাসনসহ পাবনাবাসী যে উদ্যোগ নিয়েছে, সেটা নিঃসন্দেহে ভালো উদ্যোগ। এর মধ্য দিয়ে পরীক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমবে এবং তারা নির্বিঘ্নে পরীক্ষা দিতে পারবে। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ভর্তি পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করছেন তিনি।

এনআই

আরও পড়ুন