• ঢাকা
  • সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০১৯, ০৫:৩৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ২, ২০১৯, ০৬:০৭ পিএম

বরাদ্দের অর্থ পৌঁছেনি মিলে

খুলনার ৯ পাটকলে মঙ্গলবার থেকে ধর্মঘট

খুলনা সংবাদদাতা
খুলনার ৯ পাটকলে মঙ্গলবার থেকে ধর্মঘট

বকেয়া পাওনাসহ খুলনায় পাটকল পাট খাতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ, মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন করাসহ ১১ দফা দাবিতে মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) থেকে ২৪ ঘণ্টার ধর্মঘট পালন করবে শ্রমিকরা। এ কর্মসূচির সমর্থনে সোমবার (২ ডিসেম্বর) শ্রমিকরা মিলগুলোতে গেট সভা ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে। খুলনা-যশোরের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলে এ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলসমূহের শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বাবদ সরকারের বরাদ্দ দেয়া অর্থ মিলগুলোতে পৌঁছেনি।

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের ডাকে পূর্ব ঘোষিত ছয় দিনের কর্মসূচির তৃতীয় দিন সোমবার সকাল ৯টা থেকে মিলগুলোতে গেট সভা অনুষ্ঠিত হয়। খালিশপুর, আটরা ও নওয়াপাড়া শিল্প এলাকার শ্রমিক-কর্মচারীরা এ কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

খুলনার খালিশপুর শিল্পাঞ্চলের ক্রিসেন্ট, প্লাটিনাম, খালিশপুর ও দৌলতপুর, দিঘলিয়া শিল্পাঞ্চলের স্টার, আটরা শিল্পাঞ্চলের আলীম ও ইস্টার্ন এবং নওয়াপাড়া শিল্পাঞ্চলের কার্পেটিং ও জেজেআইর শ্রমিকরা নিজ নিজ মিল গেটে সমবেত হয়। সেখানে পৃথক গেট সভা শেষে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। খালিশপুরের ৪টি মিলের শ্রমিকরা মিছিল নিয়ে বের হয়ে নতুন রাস্তা মোড়ে মিলিত হয়। এরপর মিছিলটি দৌলতপুর ঘুরে নতুন রাস্তা হয়ে আবার মিলে ফিরে যায়।

ক্রিসেন্ট জুট মিলের সিবিএ নেতা মো. মুরাদ হোসেন বলেন, আমরা মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন, বেসরকারিকরণ বন্ধ, বকেয়া বেতন ভাতাদি বন্ধসহ ১১ দফা দাবিতে আন্দোলন করছি। এ দাবি মেনে না নেয়া পর্যন্ত আমাদের কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, সরকার শ্রমিক কর্মচারীদের বকেয়া বেতন-ভাতা প্রদানের জন্য যে অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে তা এখনও আমরা হাতে পাইনি।

বাংলাদেশ জুট মিলস কর্পোরেশনের (বিজেএমসি) খুলনার আঞ্চলিক রিয়াজো কর্মকর্তা মো. বনিজ উদ্দীন মিয়া এ বিষয়ে বলেন, সরকার মিলের শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া বেতন ভাতা প্রদানের জন্য যে অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে বিজেএমসি সরাসরি মিলে পাঠিয়ে দেবে। খুলনা লিয়াজো অফিসে এ সংক্রান্ত কোন নির্দেশনা এখনও আসেনি বলে জানান তিনি। 

প্রসঙ্গত, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকদের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ৩ ডিসেম্বর ভোর ৬টা থেকে ৪ ডিসেম্বর ভোর ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা ধর্মঘট ও বিকাল ৪টায় মিল গেটে সমাবেশ করবে। এছাড়া ৮ ডিসেম্বর সকালে গেট সভা, ১০ ডিসম্বর সকাল ৮টা থেকে আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করবে।

কেএসটি

আরও পড়ুন