• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯, ০৫:৩৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯, ০৫:৩৭ পিএম

পঞ্চগড়ে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা 

পঞ্চগড় সংবাদদাতা
পঞ্চগড়ে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা 

পঞ্চগড়ে বেশ কয়েকদিন ধরেই দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হচ্ছে। এরপরও সারা দিনে রোদের উত্তাপে এক অদ্ভূত আবহাওয়া বিরাজ করছে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন স্থানে দাঁড়িয়ে লোকজন রোদ পোহাচ্ছেন। অনেকে শীতবস্ত্র ছেড়ে শুধু টিশার্ট বা অন্য পাতলা বস্ত্র গায়ে রেখে স্বাভাবিক কাজকর্ম করছেন। শীতের সকালে ঝলমলে রোদ প্রায় সবদিকে ছড়িয়ে পড়েছে। সকাল ৮টার পর থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এমন আবহাওয়া বিরাজ করে।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহিদুল ইসলাম জানান, রোববার (২৯ ডিসেম্বর) সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৪ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। গত শনিবার বিরতি দিয়ে রোববার পর্যন্ত টানা ৫ দিন ধরে এখানে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বিরাজ করে। আজ বিকাল ৩টায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২৩ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আকাশ মেঘ ও কুয়াশামুক্ত থাকায় সকাল ৯টার পর থেকে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায় বলে তিনি জানান।
তিনি বলেন, এমন স্বচ্ছ আকাশে সূর্য তার উত্তাপ পর্যাপ্তভাবে ছড়াতে পারছে। এজন্যই হয়ত সূর্যের তাপ মানুষের গাঁয়ে লাগছে।

জমিরন নেছা দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক সামসউদ্দীন চৌধুরী কালাম বলেন, খুব সকালে ও বিকেলের পর ঠাণ্ডা বেশ লাগে। আর সারাদিন থাকে রোদের তাপ। আজতো গায়ে কাপড় রাখা যায় না।

দুপুরে চৌরঙ্গী মোড়ে কথা হয় রিকশা চালক শমশের আলীর (৫০) সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘ভোরে যেসুম  (যে সময়) বাইর হই তহন শীতে থাকন যায় না। আর দুপুরে যেসুম বাড়ি যামু তহন গাঁয়ে কাপড় রাখন যায় না। এই শীতে এমুন ক্যান হইতাছে কইতে পারুম না’। 

সরকারি মহিলা কলেজের ভূগোল ও পরিবেশ বিদ্যা বিভাগের প্রধান তৌহিদুল বারি বাবু বলেন, বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব পড়ছে। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়। এজন্য এসময়ে সারাদিন রোদের উত্তাপ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আবহাওয়ার এমন আচরণ অদ্ভূত মনে হলেও এটাকেই এখন স্বাভাবিক বলে ধরে নিতে হবে।

কেএসটি