• ঢাকা
  • সোমবার, ০৬ জুলাই, ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২০, ০৮:৩১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২১, ২০২০, ০৮:৩১ পিএম

উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের সঙ্গে জাতিসংঘের বিশেষ দূতের বৈঠক

উখিয়া (কক্সবাজার) সংবাদদাতা
উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের সঙ্গে জাতিসংঘের বিশেষ দূতের বৈঠক
কুতুপালং ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে ইয়াং হি লি  -  ছবি : জাগরণ

মিয়ানমারের মানবাধিকার-বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত ইয়াং হি লি উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দ্বিতীয় দিনের মতো ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করেছেন। মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) দুপুরে কুতুপালং-১ ইস্ট ও ওয়েস্ট ক্যাম্পে রোহিঙ্গা মুসলিম ও খ্রিষ্টান রোহিঙ্গাদের সাথে পৃথক বৈঠক করেন তিনি। বৈঠকে মিডিয়াকর্মীদের এড়িয়ে যান ইয়াং হি লি।

রোহিঙ্গাদের বিতর্কিত সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের (এআরএসপিএইচ) চেয়ারম্যান মাস্টার মুহিব উল্লাহর সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। মঙ্গলবার দুপুরে কুতুপালং-১ ওয়েস্ট লম্বাশিয়া ক্যাম্পের এআরএসপিএইচ অফিসে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

মুহিব উল্লাহ বলেন, সামনে মিয়ানমারের জাতীয় নির্বাচন, এতে আমরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে চাই। এখানে আমাদের সংস্কৃতি, পরিবেশ, ইতিহাস, ঐতিহ্য ভুলতে বসেছে আমাদের ছেলেমেয়েরা। বৈঠকে রোহিঙ্গাদের পূর্ণ নাগরিকত্ব, অবাধে চলাচল, সহায়-সম্পত্তি ফেরত, স্কুল-কলেজে ছেলেমেয়েদের লেখাপড়াসহ প্রভৃতি বিষয়ে মিয়ানমার সরকার আমাদের নিশ্চয়তা প্রদান করলে ফিরতে রাজি বলে ইয়াং হি লিকে অবহিত করেন রোহিঙ্গারা।

এরপর ক্যাম্প লম্বাশিয়া-২ ইস্ট এ বসবাসরত ৪০ জন রোহিঙ্গা খ্রিষ্টানের সাথে কথা বলেন তিনি। তারাও একই দাবি উত্থাপন করেন। উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পসংলগ্ন রোহিঙ্গা নেতা জাফর আলমের ঘরে শান্তি মহিলা কমিটির ব্যানারে ১৬ জন নারী ও ২৪ জন পুরুষের সাথে পৃথক বৈঠক করেন।

এসব বৈঠকে ক্যাম্পের পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে বিভিন্ন সমস্যার মধ্যে ক্যাম্পে বসবাস করা দুষ্কর হয়ে পড়েছে বলে রোহিঙ্গারা ইয়াং হি লিকে জানান। তারা যাতে দ্রুত মিয়ানমারে ফেরত যেতে পারেন, সে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি করা হয়। মহিলা নেত্রী হামিদা বেগম বলেন, এখানকার মানুষের সাথে আমাদের সুসম্পর্ক রয়েছে।

তিন দিনের সফরে রোববার (১৯ জানুয়ারি) বিকেলে কক্সবাজারে আসেন জাতিসংঘের মিয়ানমারের মানবাধিকার-বিষয়ক বিশেষ দূত ইয়াং হি লি। বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন ও রোহিঙ্গা নেতাদের সঙ্গে সার্বিক বিষয়ে আলোচনা তার এ সফরের মূল উদ্দেশ্য বলে জানা গেছে।

এনআই

আরও পড়ুন