• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৬ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০, ০৪:৩৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০, ০৪:৩৮ পিএম

নোয়াখালীতে ১৪ দোকান পুড়ে ছাই, অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি

নোয়াখালী সংবাদদাতা
নোয়াখালীতে ১৪ দোকান পুড়ে ছাই, অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি
আগুনে পুড়ছে এক দোকান - ছবি : জাগরণ

নোয়াখালী সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের ভাটিরটেক চৌমুহনী বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে ১৪টি দোকান পুড়ে অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের। 

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) ভোররাত ৪টার দিকে ভাটিরটেক চৌমুহনী বাজারের পূর্ব বাজারে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিস ও ব্যবসায়ীরা জানান, ভোররাতে পূর্ব বাজারের নুর উদ্দিন সাইকেল মেকানিকের দোকানের বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন আশপাশের দোকানগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে মাইজদী ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এর আগেই বাজারের নুর উদ্দিন সাইকেল সেন্টার, নাহিদ লাইব্রেরি, আফসার হার্ডওয়্যার, হাজী আবদুল কাইয়ুম ইলেকট্রনিক্স, আবদুর রবের লেপ-তোশকের দোকান, ডাক্তার সহিদের ভেটেরিনারি হাউস, মিলন হোটেল, পিতু চন্দ্র সাহার লেপ-তোশকের দোকান, জামাল উদ্দিন ফার্মেসি, মনির স্টোর, মহি উদ্দিন স্টোর, আবুল কাশেমের পান দোকান, আবুল কালাম টেইলার্স ও হাজী মোতাহেরের দোকান অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানের ব্যবসায়ী বেলাল, ইমাম উদ্দিন, নোমান আবদুর রহমানসহ দোকানের মালিকরা জানান, আগুনে তাদের ১৪টি দোকান পুড়ে প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

সকালে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুল ইসলাম সরদারের নির্দেশে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও দোকান মালিকদের তালিকা প্রস্তুত করেছেন ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মো. শহিদুল ইসলাম।

মাইজদী ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আজিজুল হক অগ্নিকাণ্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট হয়ে ১২-১৪টি দোকান পুড়ে গেছে। তবে রাতে ব্যবসায়ীরা অনেকেই দোকানে উপস্থিত না থাকায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনো নির্ণয় করা যায়নি।

এনআই

আরও পড়ুন