• ঢাকা
  • বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০, ০৬:০৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২০, ০৬:০৯ পিএম

চাকরি দেয়ার নামে দেড় কোটি টাকা লুট, আটক ১০

ময়মনসিংহ সংবাদদাতা 
চাকরি দেয়ার নামে দেড় কোটি টাকা লুট, আটক ১০

জামালপুর, শেরপুরসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের বেকার-যুবকদের সরকারি চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আদায়ের অভিযোগে প্রতারক চক্রের ১০ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-১৪। 

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-১৪’র কমান্ডিং অফিসার (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল এফতেখার উদ্দিন। এর আগে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রাজধানীতে অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলো- নুর হোসেন (৫২), রানা মিয়া (৩০), মমিনুর রহমান (৩২), মুরাদুজ্জামান (২৭), শামীম হোসেন (৪০), আরিফুল ইসলাম (২৯), ফেরদৌস অহিদ তুষার (২৯), মাহাবুর রহমান মুন্সি (৩৭), ফারুক মোল্টা (৪৮) ও বাবুল ওরফে বিজয় (৪৫)।

সংবাদ সম্মেলনে লেফটেন্যান্ট কর্নেল এফতেখার উদ্দিন জানান, গত ২৬ সেপ্টেম্বর দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে নিরীহ মানুষকে সরকারি চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নেয়ার বিষয়ে একটি অভিযোগ পাওয়া যায়। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১৪ এর আভিযানির দল ছায়া তদন্তপূর্বক ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা নিশ্চিত করেন। 

তিনি জানান, আটককৃতরা ভুয়া নিয়োগপত্র দেয়ার আগে মেডিকেলে নিয়ে যেত এবং বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালে ভুয়া স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতো। প্রতারক চক্রের একজনকে প্রয়োজনে ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিতো। এরপর পরিকল্পিতভাবে প্রার্থীকে চাকরিতে যোগদানের নির্ধারিত তারিখের ৪-৫ দিন আগে ভুয়া নিয়োগপত্র দেখিয়ে চুক্তি মোতাবেক টাকা আদায় করে নিতো। এরই প্রেক্ষিতে সোমবার অভিযান চালিয়ে ওই ১০ প্রতারককে আটক করতে সক্ষম হয় র‌্যাব।

প্রতারকরা গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে ২২ জনের কাছ থেকে ১ কোটি ৫৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। তারা দীর্ঘদিন ধরে এই প্রতারণা করে আসছিল। এই সমস্ত প্রতারক চক্রের সদস্যদের বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান র‌্যাব-১৪'র সিও লেফটেন্যান্ট কর্নেল এফতেখার উদ্দিন।

এসইউ