• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
প্রকাশিত: অক্টোবর ৩০, ২০২০, ০২:৪৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ৩০, ২০২০, ০২:৫০ পিএম

ঈদে মিলাদুন্নবীর জশনে জুলুস

হাতে কালেমা খচিত ব্যানার, মুখে তাকবীর আর দরুদ

জাগরণ ডেস্ক
হাতে কালেমা খচিত ব্যানার, মুখে তাকবীর আর দরুদ
ফাইল ফটো

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষ্যে চট্টগ্রামে আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য জশনে জুলুস। এতে অংশ নিয়ে ফ্রান্সে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহে ওয়াসাল্লামের শাণ অবমাননার প্রতিবাদ জানিয়েছেন লাখো মুসল্লি। পাশাপাশি বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় রাসূলের আদর্শ অনুসরণের আহ্বানও জানানো হয়।

শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) সকালে লাখো নবীকূল শিরোমণির ভক্তের তাকবীর, শ্লোগান আর দুরুদে মুখর হয়ে ওঠে পুরো নগরী। বিশ্ব মানবতার মুক্তির দিশারী মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আগমন ও ওফাতের বিশেষ এই দিনটি স্মরণে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য জশনে জুলুস। এ সময় মুসলিম উম্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি মহানবীর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে জীবন গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মুসল্লিরা।

চার কিলোমিটার দীর্ঘ এ শোভাযাত্রায় ছিলো বর্ণাঢ্য মোটর র‌্যালিও। রাস্তার দু'পাশে দাঁড়িয়ে নবী প্রেমিদের শুভেচ্ছা জানান নগরবাসী। র‍্যালিতে অংশগ্রহণকারীদের হাতে কালেমা খচিত ব্যানার ও পতাকা। মুখে রাসূলের শানে দরুদ ও সালাম। জুলুসে স্বাস্থ্যবিধি মানা নিশ্চিতে বিতরণ করা হয় মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার।

জশনে জুলুসে অংশ নেয়া কয়েকজন জানান, মহানবী রাসুল (স.) রহমতে আমরা মহামারি করোনা থেকে মুক্ত হতে পারবো। সেই সাথে পুরো বিশ্বে শান্তির বার্তা বয়ে আসবে।

এদিকে সম্প্রতি ফ্রান্সে মহানবীকে কটুক্তির প্রতিবাদ সম্বলিত পোস্টারও শোভা পায় শোভাযাত্রায়।

আহমদিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা প্রিন্সিপাল ওছিউর রহমান বলেন, পুরো বিশ্বকে মহান আল্লাহ তায়ালা নাজাত দেন। সেই সাথে বাংলাদেশকে মহান আল্লাহ তায়ালা রক্ষা করেন।

ধর্মপুর দরবার শরীফের আয়োজনে নগরীর শিকলবাহা এ জে চৌধুরী মাঠ থেকে আরেকটি শোভাযাত্রা বের করেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। মহানবীর প্রতি ভালোবাসায় ১৯৭৪ সাল থেকে চট্টগ্রামে জশনে জুলুসের এই বর্ণাঢ্য আয়োজন পালিত হয়ে আসছে, আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট।

এসকে