• ঢাকা
  • বুধবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
প্রকাশিত: নভেম্বর ১৬, ২০২০, ১০:৫৬ এএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ১৬, ২০২০, ১০:৫৬ এএম

শখের কবুতরে স্বাবলম্বী সোহাগ

দশমিনা (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা 
শখের কবুতরে স্বাবলম্বী সোহাগ

পটুয়াখালীর দশমিনায় মাদ্রাসা পড়ুয়া শিক্ষার্থী সোহাগ (১৫) শখের বশে কবুতর কিনে এখন স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছে। ৪ বছর আগে নিজ বাড়িতে শখ করে মাত্র ২৫০ টাকায় এক জোড়া কবুতর কিনে লালন-পালন করে সে এখন সফল কবুতর খামারি। 

উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের বাঁশবাড়িয়া গ্রামের সোহাগ রজ্জাবিয়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। লেখাপড়ার পাশাপাশি নিজ বসত ঘরে বিভিন্ন প্রজাতির কবুতর পালন করছে এবং এতে লাভবান হয়েছে। 

সোহাগ জানান, শখ করে কবুতর পালন করে এখন লাভজনক পেশা ও ব্যবসায় পরিণত হয়েছে। জালালি, গিরিবাজ, শুয়াচন্দন, কালোদম, গিয়াসহ বিভিন্ন প্রজাতির কবুতর পালন করছেন। প্রত্যেক জাতের কবুতরের জন্য আলাদা আলাদা খাঁচা রয়েছে। বর্ষায় বিক্রির পড়েও বিভিন্ন জাতের ৪০টির বেশি কবুতর রয়েছে। গম, চাল, ভুসি, ভুট্টা ভাঙা, সরিষা, ধান, চাল, ছোলা বুট, মটর ডালসহ পরিমিত পানি দিনে ২ থেকে ৩ বার দিতে হয়। এতে প্রতি মাসে সাড়ে তিন হাজার থেকে চার হাজার টাকা খরচ করতে হয়। 

তিনি আরো বলেন, কবুতরের বেশি খাবারেরও প্রয়োজন হয় না। প্রতিদিন ২ থেকে ৩ বার খাবার ও পানি দিলেই হয় তবে নিয়মিত এর বিষ্ঠা পরিষ্কার করতে হয়। প্রতি মাসে সব খরচ বাদে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা কবুতর বিক্রি করে আয় করা যায়। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের জলবায়ু এবং বিস্তীর্ণ শষ্যক্ষেত কবুতর পালনের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। 

উল্লেখ্য, পৃথিবীতে ২০০ প্রজাতির কবুতর রয়েছে, এর মধ্যে বাংলাদেশে ৩০ প্রজাতির কবুতর রয়েছে। পূর্বে এ পাখিটি শখ করে পালন করা হতো।এখন সেই শৌখিনতা থেকে লাভজনক পেশায় পরিণত হয়েছে।

জাগরণ/এমআর