• ঢাকা
  • রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০২১, ১০:২৪ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৬, ২০২১, ১০:২৪ এএম

রপ্তানি হচ্ছে বগুড়ার বাঁধাকপি

রপ্তানি হচ্ছে বগুড়ার বাঁধাকপি

বগুড়ার উৎপাদিত বাঁধাকপি এখন রপ্তানি হচ্ছে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায়। রপ্তানি পণ্যের তালিকায় এই সবজি যুক্ত হওয়ায় বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের নতুন সম্ভাবনাময় খাতও তৈরি হয়েছে। 

বগুড়ার সবজির কদর রয়েছে দেশ জুড়ে। বগুড়ার মহাস্থান হচ্ছে উত্তরাঞ্চলের সবচেয়ে বড় সবজির মোকাম। প্রতিদিন এই সবজির মোকাম থেকে ৫০-৬০ ট্রাক রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে যায়। বর্তমানের দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশের বাজারে প্রবেশ করেছে বগুড়ার সবজি। 

বাঁধাকপি বিদেশে রপ্তানি হওয়ায় কৃষকরা ভাল দাম পাচ্ছেন। এতে কৃষকদের মুখে হাসি ফুটেছে। প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পেলে বাঁধাকপি দ্রুতই একটি সম্ভাবনাময় রপ্তানি খাত হিসাবে দাঁড়াতে পারে। 

এ বছর ২০০ ট্রাক বাঁধাকপি মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরে পাঠানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান। এ অঞ্চলের তিনশ নারী পুরুষ কপি বাছাই ও প্রসেসিং কাজে কর্মস্থান হয়েছে। 

বগুড়ার শিবগঞ্জের সাগর ট্রেডার্স কৃষকদের কাছে থেকে বাঁধাকপি সংগ্রহ করে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায় রপ্তানি করছে। এরমধ্যে ৭১৪ মেট্রিক টন অর্থাৎ চার লাখ আট হাজার পিস বাঁধাকপি পাঠানো হয়েছে দুই দেশে। আরও ৩৩৬ মেট্রিকটন কপি পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। 

সবজি ব্যবসায়ী সাগর হোসেন বলেন, “মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুর এই দুই দেশে যাচ্ছে বাঁধাকপি। আমরা কৃষকদের সাথে চুক্তি করেছি। তারা যেন আমাদের কীটনাশক মুক্ত বাঁধাকপি দেয়। তাহলে আমরা বেশি রপ্তানি করতে পারবো।”

এলাকার একাধিক সবজি ব্যবসায়ী জানান, এখানকার বেশকিছু পণ্য বিদেশে রপ্তানি হয়। এবার যুক্ত হল বাঁধাকপি।

শিবগঞ্জ উপজেলার কৃষি অফিসার মো. আল মুজাহিদ সরকার বলেন, “আমরা এখানে মাঝে মাঝে এসে দেখি বাঁধাকপি ভেজা আছে কিনা, পোকা ও পাতা পচা আছে কিনা। যেহেতু আমাদের যন্ত্র দিয়ে কোন পরীক্ষা করার ব্যবস্থা নেই। সরকার যদি যন্ত্র দিয়ে পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করে তাহলে আমরা আরও বিদেশে রপ্তানি করতে পারবো।”

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আলমগীর কবির জানান, বগুড়া থেকে এতদিন শুধু আলুই বিদেশে রপ্তানি হতো। এখন অন্যান্য সবজিও রপ্তানির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই উদ্যোগের মাধ্যমে স্থানীয় কৃষকরা লাভবান হবেন।