• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৯, ২০২১, ০১:১৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৯, ২০২১, ০১:৩০ পিএম

পানের দামে চাষির মুখে হাসি

পানের দামে চাষির মুখে হাসি

অনুকূল আবহাওয়া ও শীতের তেমন প্রকোপ না থাকায় এবার বরিশালে পানের আবাদ ভালো হয়েছে। গত বছর শীত ও ঘন কুয়াশার কারণে পানের ব্যাপক ক্ষতি হলেও এবার ফলন ও দাম ভালো পেয়ে খুশি পানচাষিরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জেলার গৌরনদী উপজেলাসহ আশপাশের উপজেলাগুলোতে পানের বাজার এখন বেশ চড়া। হাটবাজার ও পাইকারি মোকামগুলোতে রেকর্ড মূল্যে বিক্রি হচ্ছে পান। 

একাধিক পাইকারি পান ব্যবসায়ী জানান, ভালো মানের পান এক জোড়া (৯৬টি) বিক্রি হচ্ছে ২০০-২৫০ টাকায়। যা আগে ছিল ১৮০ টাকা। মাঝারি মানের প্রতি জোড়া পান বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়, যা আগে ছিল ১২০ টাকা। ছোট আকারের পানের প্রতি জোড়া বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকায়। যা আগে ছিল ৫০ টাকা করে। বরিশালের বিভিন্ন মোকাম থেকে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকার পান দেশের বিভিন্ন স্থানে চালান হয়।

জেলার বেশ কয়েকটি হাটবাজার গিয়ে দেখা যায়, বেচাকেনা করতে কয়েক শতাধিক চাষি পান নিয়ে বাজারে বসেন। ঢাকা, খুলনা, চাঁদপুরসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ব্যবসায়ীরা চাষিদের থেকে পান কিনছেন। এসব পান ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে যান।

জেলার গৌরনদী উপজেলার দক্ষিণ চাঁদশী গ্রামের পানচাষি তপন দত্ত বলেন, “আমাদের এলাকার মানুষ বরজ ও মাছের ঘেরের ওপর নির্ভরশীল। আমারও ১৫ কাঠার একটি পানের বরজ রয়েছে। এবার পানের ফলন যেমন ভালো হয়েছে দামও ভালো পাচ্ছি।” 

বরিশাল নগরীর চৌমাথা এলাকার পানের দোকানি রহিম হাওলাদার বলেন, “শীতকালে সব সময়ই পানে দাম বেশি হয়। গত বছরও বেশি ছিল। তবে এবার সবচেয়ে বেশি। মোকামেই দাম বেশি হওয়ায় পানের দাম বেড়েছে।”