• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২০, ২০২১, ০৯:০৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২০, ২০২১, ০৯:০৮ পিএম

সাফারি পার্কে যোগ হলো দুই ভল্লুকছানা

সাফারি পার্কে যোগ হলো দুই ভল্লুকছানা

গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে দুটি বাচ্চা প্রসব করেছে আফ্রিকা থেকে আনা কালো ভল্লুক। এ নিয়ে পালে যুক্ত হলো ১৫টি ভল্লুক।

বুধবার পার্কের কর্মকর্তারা বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে এ তথ্য জানান।

পার্কের তত্ত্বাবধায়ক ও সহকারী বনসংরক্ষক তবিবুর রহমান জানান, পার্কের ঝোপের ভেতরের গর্তে দুটি বাচ্চা প্রসব করেছে ভল্লুক। ৬ থেকে ৭ মাস পর অন্য ভল্লুকের সাথে বাচ্চাগুলো মিশতে শুরু করবে। এসময় মা ভল্লুক হিংস্র হয়ে ওঠে। তাই কাছে যাওয়া যায় না। ফলে বাচ্চা দুটি পুরুষ না মাদী তা এ মুহূর্তে নির্ণয় করা যায়নি। তবে বাচ্চা দুটি সুস্থ আছে। ভল্লুক সাধারণত একত্রে তিনটি বাচ্চা প্রসব করতে পারে। জানুয়ারির প্রথম দিকে ভল্লুকটি বাচ্চা প্রসব করে থাকতে পারে। ভল্লুক বাইরে বের হলেও খাবার দেওয়ার সময় বাচ্চার সন্ধান পাওয়া যায়নি। ভল্লুকের আচরণে পরিবর্তন দেখে বাচ্চা প্রসবের বিষয়টি প্রকাশ হয়।

তবিবুর রহমান জানান, প্রসব পরবর্তী নিরাপত্তার জন্য পার্কের প্রাণী বেষ্টনীর কর্মকর্তারা মা ভল্লুকের খাবার সরবরাহ করছেন। বিলুপ্তির ঝুঁকিতে থাকা এ প্রাণীটি তৃতীয় বারের মতো বাচ্চা প্রসব করল। এটি পার্কের আরেকটি সফলতা।

পার্কের তত্ত্বাবধায়ক আরো জানান, ২০১৩ সাল থেকে কয়েক দফায় দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে একটি পশু আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এশীয়জাতের কালো ভল্লুক আনা হয়। সদ্য জন্ম নেওয়া বাচ্চাসহ পার্কে বর্তমানে ভালুকের সংখ্যা ১৫টি। এরা সাধারণত গর্ভধারণের আট মাস পর বাচ্চা প্রসব করে। ভল্লুক ২০ থেকে ২৫ বছর পর্যন্ত বেঁচে থাকে। তবে আবদ্ধ পরিবেশে ৩০ থেকে ৩৫ বছর বেঁচে থাকে।