• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২১, ০৮:৩৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২৩, ২০২১, ০৮:৩৭ পিএম

নারী কাউন্সিলর প্রার্থীকে মারধরের অভিযোগ 

নারী কাউন্সিলর প্রার্থীকে মারধরের অভিযোগ 

ঝালকাঠির নলছিটি পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মোসা. খাদিজা পারভীন (৪৮) নামে এক নারী কাউন্সিলর প্রার্থীর প্রচারণায় বাধা ও তার ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় প্রার্থীসহ ৫ জন আহত হয়েছে।

মোসা. খাদিজা পারভীন ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী। তার বাড়ি পৌর এলাকার মালিপুর গ্রামে। আনারস মার্কা নিয়ে ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তিনি।

আক্রমণের শিকার খাদিজা পারভীন ও এলাকাবাসী জানায়, শনিবার বিকেল ৪টার দিকে নির্বাচনে প্রচারণার অংশ হিসেবে নারী কাউন্সিলর প্রার্থী খাদিজা পারভীন ও তার কর্মী-সমর্থকরা আনারস প্রতীকের পক্ষে পৌর এলাকার শীতলপাড়া গ্রামে ভোট চাইতে যান। এসময় খাদিজা পারভীনকে প্রতিদ্বন্দ্বী দ্বিতল বাস প্রতীকের প্রার্থী শিউলি বেগম ও তার ভাই সুমন হাওলাদারসহ কর্মী-সমর্থকরা দেখতে পেয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। একপর্যায় খাদিজা পারভীন ও তার কর্মী-সমর্থকের ওপর হামলা করে প্রচারে বাধা দেন শিউলি বেগমের লোকজন।হামলায় খাদিজা পারভীন, তার বড় ভাই আব্দুল কুদ্দুছ, বোন আয়েশা বেগমসহ ৫ জন গুরুতর আহত হয়।

স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নলছিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী শিউলি বেগম বলেন, “ওই প্রার্থীকে (মোসা. খাদিজা পারভীন) আমি বা আমার কর্মী-সমর্থকরা মারধর করেনি৷ উল্টো ওই প্রার্থীর লোকজন আমার ভাই সুমনের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে আহত করেছে।”

শিউলি দাবি করেন, ঘটনার সময় তিনি বরিশালে ছিলেন।

নলছিটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহম্মেদ বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ নিয়ে সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো. আরিফুর রহমান বলেন, “এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। তবে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দিলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”