• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮
প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২১, ১০:২৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৭, ২০২১, ১০:২৮ পিএম

আওয়ামী লীগ কর্মীকে গ্রেপ্তার করায় থানা ঘেরাও

আওয়ামী লীগ কর্মীকে গ্রেপ্তার করায় থানা ঘেরাও

চাঁদাবাজি ও মারধরের মামলায় বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের কর্মী রিপন মাঝিকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে বিমানবন্দর থানা ঘেরাও করেছে নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা রিপন মাঝির মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেন।

সোমবার (১৭ মে) দুপুর ১২টার দিকে নগরীর কাশীপুর এলাকায় মহানগর আওয়ামী লীগের দুই শতাধিক নেতাকর্মী বিমানবন্দর থানার সামনে জড়ো হয়ে এ বিক্ষোভ শুরু করেন। এরপর তারা থানা ঘেরাও করেন। এসময় তারা গ্রেপ্তারকৃত আওয়ামী লীগ কর্মী রিপন মাঝির মুক্তি দাবি করেন।

এদিকে অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতার ভিত্তিতে আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হলে বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক পলি আফরোজ তাকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবু বলেন, ষড়যন্ত্রকারীদের মিথ্যা অভিযোগে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের একজন কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে দ্রুত তার মুক্তি দেয়া না হলে পরবর্তীতে কঠোর আন্দোলন হবে।

বাসদ'র জেলার সদস্য সচিব ডা. মনিষা চক্রবর্তী বলেন, রিপন বিশ্বাসের নেতৃত্বে বিট বা চাঁদা দাবি করা হলে আমাদের সংগ্রাম কমিটির নেতৃত্ব তা দিতে অস্বীকৃতি জানানো হয়। এজন্য আমাদের সদস্যদের ওপর হামলা এবং ইজিবাইক ভাংচুর করা হয়। এ ঘটনায় গত ৩০ মার্চ ইজিবাইক সংগ্রাম কমিটির নেতা গোলাম রসুল বাদি হয়ে রিপনকে প্রধান আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে নগরীর বিমান বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ চন্দ্র হালদার জানান, মামলার অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতার ভিত্তিতে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। পুরো বিষয়টি পুলিশের রুটিন কাজ। রিপনকে ছাড়া না ছাড়া আদালতের ব্যাপার।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ মার্চ নগরীর ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের দিয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা বাসদ জেলা শাখার সদস্য গোলাম রসুল বাদি হয়ে ইজিবাইক থেকে অবৈধভাবে চাঁদাবাজির অভিযোগে চারজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন। এরমধ্যে এক নম্বর আসামি রিপন মাঝিকে (৩৫) কাশিপুর ভূঁইয়া বাড়ি সড়ক থেকে গ্রেপ্তার করে এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ।