• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮
প্রকাশিত: জুলাই ২৪, ২০২১, ০৪:১৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ২৪, ২০২১, ১০:১৬ এএম

বিনোদন কেন্দ্রে উপচেপড়া ভিড়, তোয়াক্কা নেই স্বাস্থ্যবিধির

বিনোদন কেন্দ্রে উপচেপড়া ভিড়, তোয়াক্কা নেই স্বাস্থ্যবিধির

কাজল আর্য, টাঙ্গাইল

টাঙ্গাইলের তিন বিনোদন কেন্দ্রে ঈদ পরবর্তী সময়ে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে উপচেপড়া ভিড় হচ্ছে। সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন চলমান থাকলেও বিনোদন কেন্দ্রগুলোর অধিকাংশেই তদারকি নেই। অবাধে চলছে শত শত মানুষের বিচরণ। এতে করোনা ঝুঁকির ভয়াবহতা বৃদ্ধি পেতে পারে।

শুক্রবার ও শনিবার সরেজমিনে টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার বাসুলিয়া, কালিহাতী উপজেলার বঙ্গবন্ধুসেতু সংলগ্ন গড়িলাবাড়ি, যমুনার নিউ ধলেশ^রীর মোহনায় বেলটিয়া, আলীপুর, ঘাটাইল উপজেলার দেওপাড়া-ধলাপাড়া সড়কে কাটাখালী এলাকায় বিনোদন প্রেমিদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। স্বাধ্যবিধি না মেনে এসব এলাকায় হাজারো নারী-পুরুষ ভিড় করছে। কেউ নৌকা ভাড়া নিয়ে আবার কেউ তীরে দাঁড়িয়ে যমুনার আগ্রাসী রূপ প্রত্যক্ষ করছে।

বাসাইলের বাসুলিয়া বিলে নৌকা নিয়ে উচ্চস্বরে গান ও মিউজিকের তালে তালে চলে নৃত্য। ইতোপূর্বে বৃহস্পতিবার এ বিলে নৌকা নিয়ে পিকনিকে নাচানাচি ৩৮জন যাত্রী নিয়ে একটি নৌকা তলিয়ে যায়। যদিও এতে হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।

দেওপাড়া-ধলাপাড়া সড়কের কাটাখালীতে রীতিমত পসরা সাজিয়ে ২০ টাকার টিকিটের মাধ্যমে কফি হাউজে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, স্ব স্ব এলাকার স্থানীয় প্রভাবশালী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের ছত্রছায়ায় করোনাকালেও চলছে এসব বিনোদন কেন্দ্র। বিনোদন কেন্দ্র নাম ব্যবহার করে ওই শ্রেণির ব্যক্তিরা পেতেছেন ব্যবসার ফাঁদ।  এতে করোনা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছেন সাধারণ মানুষ।
বাসাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনজুর হোসেন জানান, খবর পেয়ে তিনি ভ্রাম্যমান আদালত নিয়ে বাসুলিয়ার দিকে যাচ্ছেন।

কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা তানজিন অন্তরা জানান, লকডাউন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালত মাঠে রয়েছে। ওই এলাকায় মোবাইল টিম পাঠাচ্ছেন। ঘাটাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ফারজানা ইয়াসমিন জানান, খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।