• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২১, ০৯:৩৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ২, ২০২১, ০৩:৩৩ পিএম

স্বামীর কণ্ঠে অচেনা ফোন, ধানক্ষেতে নিয়ে নির্যাতন

স্বামীর কণ্ঠে অচেনা ফোন, ধানক্ষেতে নিয়ে নির্যাতন

জীবিকার তাগিদে মাছ শিকারে মেঘনা নদীতে গেলেন স্বামী। ভাড়া বাসায় দুই সন্তান নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন স্ত্রী। হঠাৎ গভীর রাতে অচেনা নম্বরে ফোন দিয়ে স্বামীর কণ্ঠে দরজা খুলতে বলেন। স্বামী ভেবে দরজা খুলতেই গৃহবধূকে ধানক্ষেতে তুলে নিয়ে করেন বেদম মারধর। চালানো হয় ধর্ষণের চেষ্টাও। তবে অজ্ঞান হওয়ায় মৃত ভেবে গৃহবধূকে ধানক্ষেতে ফেলে যায় দুর্বৃত্তরা।

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরের এমন ঘটনার মূলহোতা লোকমান হোসেন ওরফে কালু পচাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নিজের দোষও স্বীকার করেছেন লোকমান।
 
কমলনগর থানার ওসি মো. মোসলেহ উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় বুধবার বিকেলে মামলা করেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ। পরে রাতেই অভিযান চালিয়ে উপজেলার চর লরেঞ্চ ইউনিয়নের চৌধুরী বাজারস্থ জসিমের দোকান সংলগ্ন এলাকা থেকে প্রধান আসামি লোকমানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ওসি জানান, ঘটনাস্থল থেকে মোবাইল ফোনসহ নির্যাতনের বেশ কিছু আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। তবে মোবাইল ফোনের সূত্র থেকে লোকমানকে শনাক্ত করা হয়। তার বিরুদ্ধে এর আগেও এ ধরণের ঘটনা ঘটানোর অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশ জানায়, কমলনগর উপজেলার একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন জেলে দম্পতি। নদীতে বাড়িঘর ভেঙে যাওয়ায় এখানে ভাড়া ঘরে থাকেন তারা। জীবিকার তাগিদে স্বামী মেঘনা নদীতে মাছ শিকারে গেলে বুধবার দুই সন্তান নিয়ে একাই ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন তিনি।

রাত আনুমানিক ২টার দিকে হঠাৎ অপরিচিত মোবাইল নম্বর থেকে তার স্বামীর কণ্ঠ নকল করে দরজা খুলতে বলেন। দরজা খোলার পর দুর্বৃত্তরা ওই গৃহবধূর চোখ-মুখ বেঁধে বাড়ি থেকে ৩শ’ গজ দূরে একটি ধানক্ষেতে নিয়ে যায়। এ সময় তাকে বেদম মারধরসহ নির্যাতন করে। একপর্যায়ে ধর্ষণচেষ্টা চালায় তারা।

পরে নির্যাতন সইতে না পেরে গৃহবধূ অজ্ঞান হয়ে পড়লে মৃত ভেবে তাকে ধানক্ষেতে ফেলে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। রাত তিনটার দিকে জ্ঞান ফিরলে রক্তাক্ত ও অর্ধ-বিবস্ত্র অবস্থায় পার্শ্ববর্তী একটি বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেন ওই গৃহবধূ।

এমইউ