• ঢাকা
  • বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: জুন ১১, ২০১৯, ০৩:০২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ১১, ২০১৯, ০৩:০২ পিএম

ডিআইজি মিজানের ঘুষ কেলেঙ্কারি খতিয়ে দেখছে পুলিশ

আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে : এনামুল বাছির

জাগরণ প্রতিবেদক
আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে : এনামুল বাছির
মিজানুর রহমান ও খন্দকার এনামুল বাছির - ফাইল ছবি

‘ঘুষ নেয়ার অডিওর কণ্ঠ আমার নয়, এটা অন্য করো হতে পারে। এটা একটা ষড়যন্ত্র হচ্ছে আমার বিরুদ্ধে। এছাড়া এত বড় অংকের টাকা ঘুষ দিতে খোলামেলা কোলাহলমুখর রমনা পার্কের মতো জায়গায় লেনদেন করেছে। এটাও তো বিশ্বাসযোগ্য কি না তা আপনার দেখেবেন। এটা আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ।’ আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সামনে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন দুদক পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছির।
   
এদিকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরকে ঘুষ দেয়ার প্রমাণ মিললে পুলিশ কর্মকর্তা ডিআইজি মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে পুলিশ সদর দফতর। আজ পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা গণমাধ্যমকর্মীদের এ কথা বলেন। তিনি বলেন, বিষয়টি পুলিশ হেডকোয়ার্টারের দৃষ্টিগোচরে এসেছে। তা খতিয়ে দেখে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনসহ নানা দুর্নীতির অভিযোগে অনুসন্ধান চালায় দুদক। গত মাসে ওই অনুসন্ধান প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়। অনুসন্ধান করেন দুদক পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছির। তার বিরুদ্ধে ডিআইজি মিজান অভিযোগ করেন, দুর্নীতির অভিযোগ থেকে বাঁচতে এনামুল বাছিরকে দুদফায় ৪০ লাখ টাকা ঘুষ দিয়েছেন তিনি।

ঘুষ নেয়ার অভিযোগ ওঠার পর সোমবার (১০ জুন) এনামুল বাছিরকে সাময়িক বরখাস্ত করে দুদক। আর ডিআইজি মিজানের ঘুষ দেয়ার ঘটনা নজরে আসায় খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলছে পুলিশ সদর দফতর।

এইচ এম/ এফসি

Space for Advertisement