• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: নভেম্বর ৩, ২০১৯, ০৫:১২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ৩, ২০১৯, ০৫:১২ পিএম

জোড়া খুন

গৃহকর্মীর খোঁজে মাঠে পুলিশ-গোয়েন্দা

জাগরণ প্রতিবেদক
গৃহকর্মীর খোঁজে মাঠে পুলিশ-গোয়েন্দা
এই গৃহকর্মীর সন্ধান করছে পুলিশ-ছবি : সংগৃহীত

ধানমণ্ডিতে জোড়া খুনের ঘটনায় শিল্পপতি কাজী মনির উদ্দিন তারিমের পিএস বাচ্চুকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তারিমের শ্বাশুড়ি আফরোজা বেগমের নতুন গৃহকর্মীর খোঁজে পুলিশের পাশাপাশি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক দল সম্ভাব্য সব জায়গায় অভিযান চালাচ্ছে। সন্দেহভাজন গৃহকর্মীর নাম পরিচয় জানতে গোয়েন্দারা ধানমণ্ডির ওই ভবনের অদূরের একজন স্টেশনারি ও মুদি দোকানিকে আটক ও জিজ্ঞাসাবাদ করছে। 

হত্যাকাণ্ডের মোটিভ উদঘাটন ও ঘাতকদের সন্ধানে পিএস বাচ্চু এবং ভবনের ইলেক্ট্রিশিয়ান বেলায়েত হোসেনকে মিন্টুরোডের গোয়েন্দা কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। 

ধানমণ্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল লতিফ দৈনিক জাগরণকে বলেন, টাকা ও সোনার অলঙ্কার চুরি করতেই হত্যা করা হতে পারে দু’জনকে। এ ক্ষেত্রে তাদের সন্দেহের তীর ওই বাড়ির নতুন গৃহকর্মীর দিকে। একদিন আগে তারিমের পিএস বাচ্চু ওই গৃহকর্মীকে নিয়োগ দিয়েছিলেন। ঘটনার পর থেকেই সে পলাতক।

ওসি আবদুল লতিফ বলেন, সে একাই কাজটি করেছে নাকি তার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত ছিল এসব বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সিসিটিভি ফুটেজ থেকে গৃহকর্মীর ছবি সংগ্রহ করা হয়েছে। তাকে ধরার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

ওসি জানান, বিকেল ৫টা থেকে সাড়ে ৬টার মধ্যে এই জোড়া খুনের ঘটনা ঘটেছে। 

শুক্রবার (১ নভেম্বর) রাতে ধানমণ্ডি ২৮ নম্বর সড়কের ২১ নম্বর বাসার চতুর্থ তলার একটি ফ্ল্যাট থেকে ক্রিয়েটিভ গ্রুপের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারিমের শাশুড়ি আফরোজা বেগম ও তার গৃহকর্মী দিতির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ওই ভবনে তারিমের চারটি ফ্ল্যাট রয়েছে। এর মধ্যে চতুর্থ তলার ওই ফ্ল্যাটে থাকতেন আফরোজা।

তারিম অভিযোগ করেন, ওই ফ্ল্যাটে যে টাকা ও সোনার অলঙ্কার ছিল সেগুলো পাওয়া যাচ্ছে না। আফরোজা ও দিতিকে হত্যার পর খুনি সেগুলো নিয়ে পালিয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছেন তিনি।

শনিবার (২ নভেম্বর) দুপুরে ময়না তদন্ত শেষে হাসপাতালের মর্গ থেকে আফরোজা বেগম ও গৃহকর্মী দিতির মরদেহ নিয়ে গেছেন স্বজনরা। দিতির মরদেহ তার গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের গফরগাঁয়ে দাফন করার কথা। আফরোজা বেগমের মরদেহ বারডেমের হিমাগারে রাখা হয়েছে। তার নাতি বিদেশ থেকে দেশে আসলেই দাফন করা হবে বলে জানা গেছে।  

এইচএম/এসএমএম

আরও পড়ুন