• ঢাকা
  • শনিবার, ০৪ এপ্রিল, ২০২০, ২০ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: মার্চ ১৭, ২০২০, ০৩:৫৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ১৭, ২০২০, ০৪:০৪ পিএম

ক্ষমতার প্রহসন

কুড়িগ্রামের ঈদও পাল্টে দিয়েছিলেন ‘মধ্যরাতের ডিসি’

জাগরণ ডেস্ক
কুড়িগ্রামের ঈদও পাল্টে দিয়েছিলেন ‘মধ্যরাতের ডিসি’
(বাঁ থেকে) জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন ও বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম

সাংবাদিক হয়রানির ইস্যুতে আলোচিত, ক্ষমতার ঔদ্ধত্যে হিতাহিত জ্ঞানশূণ্য হয়ে পড়া কুড়িগ্রামের প্রত্যাহৃত ডিসি সুলতানা পারভীনের একের পর এক থলের খবর বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে।যার প্রতিটিই রীতিমত বিস্মিত করে তুলছে গোটা দেশ। এবার তার সম্পর্কে জানা গেল আরও এক চাঞ্চল্যকর তথ্য, ক্ষমতার বলে শুধু ধরার আইন না স্বর্গের বিধিও বদলে দেয়ার নজির আছে তার।

৪ জুন ২০১৯ সালের পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার কথা নিশ্চয় ভুলে যায়নি দেশবাসী। সে বছরের ঘটনা। রমজান মাসের ২৯ রোজা সম্পন্ন। সৌদি আরবসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ দিনটিতে ঈদ পালন করলেও বাংলাদেশের আকাশে কোথাও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। অবশেষে রাত ৯টায় চাঁদ দেখা কমিটি জানায়, বাংলাদেশের আকাশে কোথাও শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। তাই আজও পবিত্র তারাবিহর নামাজ আদায় করার আদেশ দেয় ইসলামিক ফাউন্ডেশন। ঈদ অনুষ্ঠিত হবে বৃহস্পতিবার। 

ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা তখন তারাবিহর নামাজ আদায় করে ফেলেছেন। কিন্তু রাত ১১টায় ঘটনা মোড় নেয় দারুণ নাটকীয়তায়। সকল আলোচনাকে অবসান জানিয়ে অবশেষে বুধবারই ঈদ উদযাপন করতে বলে চাঁদ দেখা কমিটি। পরদিন মানুষ ঈদ উদযাপন করলেও চাঁদ দেখা নিয়ে আলোচনার রেশ থেকেই গিয়েছিল কয়েক সপ্তাহ।

যা ঘটে সেই রাতে

৪ জুন ২০১৯, রাত ৯টায় চাঁদ দেখতে না পাওয়ায় আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়ার পর রাত ১১টার দিকে জানানো হয় শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে। বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে কমিটির বৈঠক শেষে চাঁদ দেখতে পাওয়ার সংবাদ জানান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। কুড়িগ্রামের তিন উপজেলা, লালমনিরহাটের এক উপজেলায় চাঁদ দেখা গেছে মর্মে দ্বিতীয় দফার বৈঠকে চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত জানায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী।

বৈঠকে মন্ত্রী বলেন, রাতে কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী ও লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় অনেকে চাঁদ দেখতে পেয়েছেন বলে খবর পান। কুড়িগ্রাম জেলার আলোচিত ডিসি মোছা. সুলতানা পারভীন বিষয়টি জোরালোভাবে উপস্থাপন করলে চাঁদ দেখা কমিটি নতুন করে এ সিদ্ধান্ত নেন।

কুড়িগ্রামের ডিসি বদলে দেন ঈদের দিন!

রাত ৯টায় কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভিন টিভির সংবাদ ও স্ক্রলে দেখতে পান আগামীকাল ঈদ হচ্ছে না। এই সংবাদ দেখার পর কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী, নাগেশ্বরী ও ফুলবাড়ী- এই তিন জেলার লোকজন ডিসি সুলতানাকে অনবরত ফোন করা শুরু করে। ওই রাতে প্রায় ৫০-৬০ জনের ফোন রিসিভ করেন ডিসি। সবার একই কথা তারা চাঁদ দেখেছে। পরে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিবের সঙ্গে কথা বলেন ডিসি। সচিব তাকে লিখিত দিতে বলেন। পরে ওই তিন উপজেলার ইউএনওদের মাধ্যমে লিখিত বক্তব্য নিয়ে সেটি মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দেন কুড়িগ্রামের আলোচিত সেই ডিসি সুলতানা পারভীন।

১৩ মার্চ মধ্য রাতে কুড়িগ্রাম ডিসি অফিসের দুই-তিনজন ম্যাজিস্ট্রেট ১৫-১৬ জন আনসার সদস্যকে নিয়ে সাংবাদিক আরিফুলের বাসার দরজা ভেঙে বাসায় প্রবেশ করেন। তবে তারা কোনো তল্লাশি অভিযান চালাননি। পরে ডিসি অফিসে নেওয়ার পর তারা দাবি করেন, আরিফুলের বাসায় আধা বোতল মদ ও দেড়শ গ্রাম গাঁজা পাওয়া গেছে। আরিফুলকে রাতেই মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে এক বছরের সাজা দেওয়া হয়।

জানা যায়, জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীন একটি পুকুর সংস্কার করে নিজের নামে নামকরণ করতে চেয়েছিলেন। আরিফুল এ বিষয়ে নিউজ করার পর থেকেই তার ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন ডিসি। এছাড়া সম্প্রতি জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে রিপোর্ট করতে চেয়েছিলেন সাংবাদিক আরিফ। এ বিষয়ে জানতে পেরে জেলা প্রশাসকের অফিস থেকে তাকে বেশ কয়েকবার ডেকে নিয়ে সতর্ক করা হয়।  

অবশেষে পারভীনের 'লঙ্কা পতন'

এ ঘটনায় কুড়িগ্রাম থেকে রবিবার (১৫ মার্চ) প্রত্যাহার করে জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীনকে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষরের পর সুলতানার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হতে পারে বলে জানান জন প্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের তদন্ত প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে এমনটি জানান তিনি।

এসকে