• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই, ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ২৭, ২০২০, ০৬:০৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২৭, ২০২০, ০৭:১৬ পিএম

মীমের পর এবার তুরাগে ৬ বছরের শিশু ধর্ষিত

এস এম সাব্বির খান
মীমের পর এবার তুরাগে ৬ বছরের শিশু ধর্ষিত

নগরীর তুরাগ থানাধীন নয়নীচালা এলাকায় ১২ বছরের কিশোরী মীম ধর্ষণের রেশ না কাটতেই এবার একই থানাধীন নলভোগ এলাকায় ৬ বছরের এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার (২৭ মে) ওই ঘটনায় অভিযুক্তকে আটক করেছে তুরাগ থানা পুলিশ।

তুরাগ থানার এসআই নিয়াজ দৈনিক জাগরণকে বলেনে, নলভোগের এই শিশু ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মোস্তফা নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার বাসিন্দা মোস্তফা পেশায় একজন কসাই।

স্থানীয়দের ভাষ্য মতে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার শিশুটির মা একজন পোশাক শ্রমিক। তিনি কর্মস্থলে গেলে শিশুটি বাড়িতে একা থাকত। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে তার প্রতিবেশী মোস্তফা প্রায়শই তাদের বাড়িতে এসে ঘরে ঢুকে৷ দরজা বন্ধ করে দিত। মোস্তফা গত তিন দিন একই কাজ করেছিলেন যা অন্যান্য প্রতিবেশীদের কাছে সন্দেহজনক বলে মনে হয়।

বুধবার (২৭ মে) সকালেও মোস্তফা শিশুটির বাড়িতে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করে।

ঘটনাটি এক প্রতিবেশী নারী তার মোবাইল ফোনের রেকর্ডারে ধারণ করেন প্রমাণ হাতে রাখতে। কিন্তু তাৎক্ষণিক আশে-পাশে কেউ না থাকায় তিনি সাহায্যের জন্য উপায় খুঁজে পাননি।

পরে সেই প্রতিবেশী নারী এই প্রমাণের ভিত্তিতে অন্যান্যদের সঙ্গে নিয়ে মোস্তফার সন্ধান করে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

সম্প্রতি তুরাগের নয়নীচালা এলাকায় ১২ বছরের এক কিশোরীকে ত্রাণ ও ঈদের জামা দেয়ার নামে বাড়িতে এনে ধর্ষণ করে তৌহিদ নামের স্থানীয় এক যুবক। এ ঘটনায় তুরাগজুড়ে ব্যাপক প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। এ ব্যাপারে আদালতে কিশোরীর জবানবন্দিও গ্রহণ করা হয়। মামলার অভিযুক্ত আসামি তৌহিদ পলাতক।

স্থানীয়দের অভিযোগ, এ ঘটনার পর প্রায় ১০/১২ দিন সময় অতিবাহিত হলেও এখনও পর্যন্ত আসামিকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

তাদের দাবি, তৌহিদে মত ধর্ষকদের এখনও বিচারের আওতায় আনা যায়নি বলেই তুরাগে আরও একটি বর্বর ঘটনার নজির দেখা গেল।

এসকে/এসএমএম