• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর, ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
প্রকাশিত: অক্টোবর ২১, ২০২০, ১২:১০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ২১, ২০২০, ১২:১০ পিএম

মুখ খুললে তোর বোনকেও দলবেঁধে ধর্ষণ করা হবে  

জাগরণ ডেস্ক
মুখ খুললে তোর বোনকেও দলবেঁধে ধর্ষণ করা হবে  
ফাইল ছবি

নরসিংদী জেলার সদর উপজেলার শীলমান্দিতে টেক্সটাইল মিলের এক নারীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ইতিমধ্যেই দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) বিকেলে গ্রেফতার দুইজনকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। 

মঙ্গলবার সকালে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- সদর উপজেলার শীলমান্দির দক্ষিণ শীলমান্দি এলাকার মো. আমীর হোসেনের ছেলে মো. জামান মিয়া (৩০) এবং আবদুল মান্নান ভূঁইয়ার ছেলে ওসমান ভূঁইয়া (৩২)।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, শনিবার রাত ১০টার দিকে রাতের শিফটে কাজ করতে টেক্সটাইল মিলে যাওয়ার জন্য রওনা হন ওই নারী।পথে জামান মিয়া ও ওসমান ভূঁইয়া ওই নারীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে অন্য একটি টেক্সটাইল মিলের ফাঁকা জায়গায় বাঁশ বাগানের ভেতর পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। এ সময় অজ্ঞাত আরো একজন তাদের পাহারায় ছিলেন।

গণধর্ষণের পর আসামিরা চলে যাওয়ার সময় ওই নারীকে হুমকি দিয়ে বলেন, এই ঘটনা কাউকে জানালে তোকে হত্যা এবং তোর বড় বোনকেও গণধর্ষণ করা হবে। এরপর বিষয়টি গোপন রাখেন তিনি।

পরে পরিবারের সদস্যরা তার পরনের কাপড় ছেঁড়া কেন জানতে চাইলে ভয়ে কান্নাকাটি করেন। তবে অভিযুক্তদের নাম প্রকাশ করেননি। পরদিন তার ফুফু ও এক বান্ধবীর কাছে গণধর্ষণের ঘটনাটি জানান।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে ওই নারীর বাবা বাদী হয়ে দুইজনের নাম উল্লেখসহ তিনজনকে আসামি করে নরসিংদী সদর মডেল থানায় মামলা করেছেন।

এ প্রসঙ্গে নরসিংদীর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের পরিদর্শক (প্রশাসন) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, গণধর্ষণের ঘটনাটি জানার সঙ্গে সঙ্গে আমরা অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত জামান মিয়া ও ওসমান ভূঁইয়াকে গ্রেফতার করেছি। তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে স্বীকার করেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

জাগরণ/এমআর