• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০১৯, ১১:৪৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৬, ২০১৯, ০৫:৫৫ এএম

দফায় দফায় বৈঠক

পেট্রোবাংলার বকেয়া আদায় করতে পারছে না এনবিআর

আলী ইব্রাহিম
পেট্রোবাংলার বকেয়া আদায় করতে পারছে না এনবিআর

দফায় দফায় বৈঠক করেও পেট্রোবাংলার কাছ থেকে বকেয়া আদায় করতে পারছে না জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী পেট্রোবাংলার কাছে এনবিআরের রাজস্ব বাবদ বকেয়ার পরিমাণ দাঁড়িয়েছে সাড়ে ১৭ হাজার কোটি টাকা। এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, পাওনা আদায়ে পেট্রোবাংলার সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে। সর্বশেষ গত ৯ এপ্রিল এনবিআর চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে এনবিআর বৈঠকে বসে। এতে দ্রুত বকেয়া পরিশোধের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। যদিও এর আগে কয়েক দফা বৈঠক করে তেমন কোনো অগ্রগতি হয়নি। এই বৈঠকে পেট্রোবাংলার এক পরিচালকও উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র আরো জানায়, পেট্রোবাংলার কাছে এনবিআরের বকেয়ার পরিমাণ ১৭ হাজার ৬৯১ কোটি টাকা। এর মধ্যে মূল্য সংযোজন করের (ভ্যাট) বৃহৎ করদাতা ইউনিট (এলটিইউ) পাবে ১৩ হাজার ২৭৮ কোটি টাকা। যা চূড়ান্ত দাবিনামা জারি করেছে এলটিইউ। গত ১৪ মার্চের বৈঠকে তা পরিশোধের সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া অর্থমন্ত্রী কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের কাছ থেকে নিরীক্ষা সম্পন্ন করে পেট্রোবাংলার কাছে না পাঠিয়ে অর্থ বিভাগে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া এলটিইউর পাওনা দাবি পরিশোধে প্রতিষ্ঠানটিকে দ্রুত বিষয়টি নিষ্পত্তির তাগিদ দিয়েছেন।

বৈঠকে এলটিইউ (ভ্যাট) কমিশনার জানান, বুক অ্যাডজাস্টমেন্ট ছাড়াও পেট্রোবাংলার বকেয়ার পরিমাণ ৪  হাজার ৪১৩ কোটি টাকা। যা পরিশোধের জন্য পেট্রোবাংলা কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়।

এ প্রসঙ্গে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান বলেন, লিকিউডিটি সংকটের কারণে বকেয়া পরিশোধে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে। তবে প্রতিমাসে কিছু কিছু পরিশোধ করা হচ্ছে।

বৈঠকে পেট্রোবাংলার পরিচালক (অর্থ) মো. হারুন অর রশিদ জানান, কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের অফিস থেকে নিরীক্ষা শেষ করে অর্থ বিভাগে না পাঠিয়ে পেট্রোবাংলার কাছে পাঠানো হয়েছে। তা যেন দ্রুত অর্থ বিভাগে পাঠানো হয় এজন্য পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানের সহযোগিতা কামনা করেন।

এআই/ এফসি