• ঢাকা
  • রবিবার, ০৫ জুলাই, ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: অক্টোবর ৩০, ২০১৯, ০৯:৩১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ৩০, ২০১৯, ০৯:৪৮ পিএম

মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক,৭৩৭ কোট টাকার ৮টি প্রকল্পের অনুমোদন  

জাগরণ প্রতিবেদক
মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক,৭৩৭ কোট টাকার ৮টি প্রকল্পের অনুমোদন  
মন্ত্রিসভার বৈঠক

গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন এবং আধুনিক নাগরিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত পাইলট প্রকল্পসহ ৭৩৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকার মোট ৮টি প্রকল্পের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে পাঠানো একটি প্রস্তাবসহ তিনটি প্রস্তাব আরো অধিকতর যাচাই-বাছাইয়ের জন্য ফেরত পাঠানো হয়েছে।

বুধবার (৩০ অক্টোবর) বিকেলে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির দুটি বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা জানান। 

বৈঠকে মন্ত্রিসভা কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। 

অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, আজকের গ্রামীন জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন এবং আধুনিক নাগরিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত সমাবায় ভিত্তিক বহুতল ভবন বিশিষ্ট ‘পল্লী জনপদ নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পটির রংপুর এবং গোপালগঞ্জে সবচেয়ে বেশি কাজ হয়েছে। বগুড়ায় এর ৩০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। 

আ হ ম মোস্তফা কামাল বলেন, ১৫৪ কোট ৬০ লাখ টাকার এ প্রকল্পটি সম্পন্ন হলে দেশের গ্রামীন জনপদেও মানুষরা উপকৃত হবেন। তাদেও জীবনমানও বদলে যাবে। প্রকল্পের বিস্তারিত উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, গ্রামের মানুষদের একটি কর্নারে নিয়ে এসে বহুতল ভবনে থাকতে দিয়ে পুরো গ্রামের জমিকে ফসলি জমি বানিয়ে ব্যাপক ফসল ফলানোর উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হবে। যার যতটুকু জমি থাকবে, সেই আনুপাতিক হারে তিনি ফসলের অংশিদার হবেন।

তিনি সরকারের এই পাইলট প্রকল্পের বিষয়ে আরো জানান, গত ১৯/০৮/২০১৪ সালে একনেকের বৈঠকে অনুমোদিত হয়। এর ৭টি সাইটের মধ্যে চলমান ৩টি সাইট রংপুর , রাজশাহী এবং ঢাকার নির্মান কাজ সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি (ডিপিএম) অনুস্মরণে বাস্তবায়নের জন্য ১৯/০৬/২০১৯ সিসিইএর সভায় ভূ’তাপেক্ষ অনুমোদন প্রস্তাব সম্পর্কিত কার্যবিবরনীর সার সংক্ষেপ পর্যালোচনা কালে প্রধানমন্ত্রী অনুশাসন প্রদান করেন- পল্লী জনপদের যে কাজ শেষ হয়েছে, সেগুলো যাচাই-বাছাই করে পরবর্তী কাজ শুরু করা সমীচীন হবে কি-না, পর্যালোচনা করে পরবর্তী কাজে শুরু করতে হবে।

অর্থমন্ত্রী জানান, সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানীর দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) সংশোধন আইন ২০১৮ এর আওতায় ‘রুপকল্প-২’ শীর্ষক প্রকল্পের অধীনে ‘জকিগঞ্জ-১’ কুপ খনন কার্যক্রমের জন্য ওয়েল কমপ্লিশন ম্যাটিরিয়ালস ক্রয়ের প্রস্তাবের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এ প্রকল্পে ব্যয় হবে ৮৬ লাখ ৯৪ হাজার ৩শত টাকা। 

তিনি আরো জানান, চট্টগ্রাম রাঙ্গামাটি জাতীয় মহাসড়ক (এন-১০৬) এর হাটহাজারী হতে রাউজান পর্যন্ত সড়কাংশ ‘৪ লেনে উন্নীতকরণ’ শীর্ষক ২২০ কোটি টাকার প্রকল্প, ইউরিয়া সার ক্রয় সংক্রান্ত ১৮৮ কোট ৭৯ লাখ টাকার দুটি আমাদানী প্রকল্প ও বিজিএমসির কাছ থেকে ৮১ কোটি টাকার পাটের বস্তা ক্রয় পকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

 

এমএএম/বিএস