• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৫ জুন, ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: মার্চ ২৭, ২০২০, ০২:০১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ২৭, ২০২০, ০২:০১ পিএম

প্রায় ক্রেতাশূন্য কাঁচাবাজার, কমেছে দামও

জাগরণ ডেস্ক
প্রায় ক্রেতাশূন্য কাঁচাবাজার, কমেছে দামও
পণ্যের সরবরাহ আছে কিন্তু ক্রেতা সমাগম কম ● টিভি থেকে নেয়া

প্রায় ক্রেতাশূন্য রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলো। নেই হুড়োহুড়ি, জটলা। কমে গেছে বিক্রি।কেজিতে ২০ টাকা পর্যন্ত সব সবজির দাম কমলেও বেড়েছে মাছ, মুরগি, গরু ও খাসির মাংসের দাম। তবে দাম কম-বেশি যাই হোক, ক্রেতা কিন্তু খুবই কম।

মহামারি রূপ নেয়া করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে অঘোষিত লকডাউনে রাজধানী। সাধারণ ছুটির আওতায় প্রায় জনশূন্য ঢাকা।

কাঁচাবাজারেও ক্রেতার অপেক্ষায় থাকা বিক্রেতারা জানালেন, সবজির সরবরাহ থাকলেও কমেছে দাম ও বিক্রি। দু’একজন ক্রেতা এসেছেন প্রয়োজন মেটাতে।

একজন বলেন, প্রায় সব জিনিসের দাম কমেছে। কাঁচা পেপে, টমেটো, কাঁচা মরিচেরও দাম কমেছে।

আরেকজন বলেন, পণ্যের সরবরাহ আছে, কিন্ত কোনও ক্রেতা নেই। পাইকারি বাজারেও কোনও ক্রেতা নেই।

এক বিক্রেতা বলেন, ক্রেতা কম থাকায় যা সরবরাহ করা হয়েছে, তাই বেশি হয়ে গেছে।

ফাঁকা মাছ বাজারও। তারপরেও সরবরাহ কমের অজুহাতে দাম নেয়া হচ্ছে বাড়তি। 

একজন বলেন, আগের তুলনায় মাছের সরবরাহ অনেক কম। রাস্তা-ঘাটে গাড়ি বন্ধ তাই মাছ সরবরাহে বিঘ্ন ঘটছে। এজন্য মাছের দাম একটু চড়া।  

মাংসের বাজারে গরুর মাংসের দাম বেড়েছে কেজিতে ৩০, খাসির কেজিতে বেড়েছে ১০০ টাকা।

দেশি মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ৫০ টাকা। তবে নেই তেমন কোনও বেচাকেনা। সময়টিভি।

এসএমএম