• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ১৫, ২০২০, ০২:৩১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৫, ২০২০, ০২:৩১ পিএম

হদিস নেই শুল্কমুক্ত ২২০ কোটি টাকার পণ্যের

জাগরণ ডেস্ক
হদিস নেই শুল্কমুক্ত ২২০ কোটি টাকার পণ্যের
সংগৃহীত ছবি

শুল্কমুক্ত সুবিধায় আনা ২২০ কোটি টাকার আমদানিকৃত পণ্যের হদিস নেই। রফতানি না করে খোলাবাজারে এসব পণ্য বিক্রি করেছে নাসা গ্রুপ, যেটি এখন প্রমাণিত। শুধু তাই নয়, প্রভাব খাটিয়ে অতিরিক্ত ৪২৭ কোটি টাকার ঋণ হতিয়ে নিয়েছেন নাসা গ্রুপের প্রধান ও এক্সিম ব্যাংকের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার। তার বিরুদ্ধে বিদেশে টাকা পাচারসহ অনিয়মের বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার তাগিদ বিশ্লেষকদের।

নাসা অ্যাপারেলসের মাধ্যমে যাত্রা শুরু নজরুল ইসলাম মজুমদারের। তবে তিনি আলোচনায় আসেন, এক্সিম ব্যাংকের চেয়ারমান হিসেবে।

অভিযোগ আছে, বছরের পর বছর পদ ধরে রেখেছেন ব্যাংক পরিচালকদের সংগঠন বিএবি’র। সভাপতির প্রভাব খাটিয়ে ঋণ বাগিয়েছেন হাজার হাজার কোটি টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনই উঠে এসেছে, তিন বছরে নাসা গ্রুপ সীমার অতিরিক্ত ঋণ নিয়েছে ৪২৭ কোটি টাকা। এরমধ্যে টেক্সটাইলস ইউনিট গ্রুপে ২৫০ কোটি এবং গার্মেন্ট ইউনিট প্রভাব খাটিয়ে ঋণ সীমার অতিরিক্ত নিয়েছে ১৭৭ কোটি টাকা।

শুধু তাই নয়, নজরুল ইসলাম মজুমদারের বিরুদ্ধে বন্ডেড ওয়ারহাউজ সুবিধার ২২০ কোটি টাকার পণ্য খোলাবাজারে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। তার টেক্সটাইল ইউনিটে ১১৫ কোটি টাকা এবং গার্মেন্ট ইউনিটে ১০৫ কোটি টাকার শুল্কমুক্ত পণ্যের রপ্তানির হদিস মেলেনি তদন্তে।

ঋণ খেলাপিকে ঋণ দেয়াসহ ব্যাংক ঋণের ক্ষেত্রে অনিয়মও করেছেন নজরুল ইসলাম মজুমদার। যমুনাটিভি।

এসএমএম

আরও পড়ুন