• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৫, ২০২১, ০৩:১৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ১৫, ২০২১, ০৯:১৮ এএম

ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু: শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

ঢাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু: শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) নৃত্যকলা বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী ইলমা চৌধুরী মেঘলার (২৪) মৃত্যুর ঘটনায় রাজধানীর বনানী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। মেঘলার বাবা সাইফুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

আজ বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) সকালে বনানী থানার ওসি নুরে আজম মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
 
তিনি বলেন, ইলমার বাবা গতকাল রাতে বাদী হয়ে হত্যা মামলাটি রুজু করেন। মামলায় তিন জনকে আসামি করা হয়েছে।

আসামিরা হলেন- ইলমার স্বামী ইফতেখার আবেদীন (৩৬) এবং ইলমার শ্বশুর ও শাশুড়ি। এ মামলায় গতকাল আটক হওয়া ইফতেখার আবেদীনকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এছাড়া বাকি দুই আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গতকাল (১৪ ডিসেম্বর) বিকেল চারটার দিকে রাজধানীর বনানীতে স্বামীর বাসায় মারা যান ইলমা। তার শরীরে আঘাতের অনেক চিহ্ন দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন সহপাঠীরা। তবে ইলমার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির মানুষের দাবি তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

মেঘলার সহপাঠী আশিকুর রহমান জানান, লকডাউনের মধ্যে মেঘলার বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর সে আর ক্যাম্পাসে আসেনি। কয়েকদিন আগে একটা ইম্প্রুভ পরীক্ষা দেওয়ার জন্য এসেছিল। সেদিন তার সঙ্গে বাসার কাজের মেয়েকে পাঠানো হয়। তখন আমাদের কিছু বলতে চাইছিল। কিন্তু পুরো সময় তাকে ভিডিও কলে থাকতে হয়েছিল। ইলমা কোথায় যাচ্ছে, কি করছে- তা তার স্বামী পর্যবেক্ষণ করছিলো।

তার সহপাঠী নুসরাত তিথি জানান, তার স্বামীর সঙ্গে একটু ঝামেলা চলছিল৷ করোনার মধ্যে বিয়ে হওয়ার পর মেঘলা ক্যাম্পাসে আসেনি। একদিন ফরম ফিলআপ করতে এসেছিলো। সেদিন ভিডিও কলে থাকতে হয়েছে তাকে। মেঘলাকে তার মা-বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করতে দিতো না।

মেঘলার মা সিমথি চৌধুরী জানান, আমার মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমি এর বিচার চাই।

বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন, এটা হত্যা না আত্মহত্যা বিষয়টি এখনো নিশ্চিত নই।  আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। ময়নাতদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

এমইউ