• ঢাকা
  • বুধবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২২, ১৩ মাঘ ১৪২৮
প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২২, ০৪:৫৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ৯, ২০২২, ১০:৫৩ এএম

প্রশংসাপত্রের জন্য শিক্ষার্থীদের থেকে ৫’শ টাকা আদায়ের অভিযোগ!

প্রশংসাপত্রের জন্য শিক্ষার্থীদের থেকে ৫’শ টাকা আদায়ের অভিযোগ!
ছবি- জাগরণ।

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি// 
পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদেরকে টাকার বিনিময়ে প্রশংসাপত্র প্রদানের অভিযোগ উঠেছে। এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের পরপর-ই ছোটবাইশদিয়া ফজলুল করিম মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা প্রশংসাপত্র আনতে গেলে তাদেরকে জানিয়ে দেয়া হয় প্রতি জনকে প্রশংসাপত্র বাবদ পাঁচশত টাকা নিয়ে আসতে হবে। বাধ্য হয়ে ওই শিক্ষার্থীরা ৪’শ থেকে ৫’শ টাকা দিয়ে প্রশংসাপত্র নিচ্ছে। উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা প্রশংসাপত্র ছাড়া উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে না। এই সুযোগে তাদের কে জিম্মি করে বাড়তি টাকা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে একাধিক শিক্ষার্থীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ‘ছোটবাইশদিয়া ফজলুল করিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়’ থেকে টাকার বিনিময়ে ৪ থেকে ৫ জন শিক্ষার্থী প্রশংসাপত্র নিয়েছে।

ওই বিদ্যালয় থেকে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী রাজিব দাস জানায়, ‘ফলাফল প্রকাশের দুই দিন পরে স্কুলে প্রশংসাপত্র আনতে গিয়েছি। তখন টাকা নিয়ে যায়নি বলে প্রধান শিক্ষক প্রশংসাপত্র ছাপানো নেই বলে পরের দিন যেতে বলে। স্যারের কথা মতো পরের দিন স্কুলে গেলে প্রশংসাপত্র বাবদ ৫’শ টাকা চায়। বাধ্যতামূলক টাকা দেয়া লাগবে কিনা জিজ্ঞেস করলে আমার উপর চড়াও হয়। নীরুপায় হয়ে সোহরাব স্যারের বিকাশ নম্বরে ৫’শ টাকা দিয়ে দুইজনের প্রশংসাপত্র নিয়ে আসি।’ 

ছোটবাইশদিয়া ফজলুল করিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বশির উদ্দিন শরত বলেন, ‘টাকা ছাড়া কেউ প্রশংসাপত্র দেয়? ও স্যার আপনারা কি জীবনে আনছেন টাকা ছাড়া প্রশংসাপত্র? আমার একার সিদ্ধান্তে দু’জন মানুষ ছাড়তে পারবো না। আমি যদি জানি একটা মানুষ হত-দরিদ্র, খেতে পায় না, টিচার্সদের সাথে আলাপ আলোচনা করে হয়তো তার থেকে ৫০ টাকা কম নিতে পারি। এছাড়া কোনও সুযোগ নেই।’

উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার অনাদি কুমার বাহাদুর বলেন, প্রশংসাপত্র প্রদানে টাকা নেয়ার কোন সুযোগ নেই। ফরম পূরণের সময় এ বাবদ খরচ নেয়া হয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

 

এসকেএইচ//