• ঢাকা
  • শনিবার, ২৮ মে, ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৭, ২০২২, ০১:২০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৭, ২০২২, ০৭:২০ এএম

উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে শাবিপ্রবি ক্যাম্পাস উত্তাল

উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে শাবিপ্রবি ক্যাম্পাস উত্তাল
ফাইল ফটো।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ ও হামলার প্রতিবাদে এবার উপাচার্যের পদত্যাগ এবং ক্যাম্পাস বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা প্রক্টরিয়াল বডি এবং ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালকেরও বিনাশর্তে পদত্যাগের দাবি জানান।

সোমবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে এসব দাবি করেন। 

অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বরে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। পরে সেখান থেকে মিছিল নিয়ে ছাত্রী হলের সামনে যান তারা। পরে সেখান থেকে ছাত্রীরা বিক্ষোভ মিছিলে যোগ দিয়ে গোল চত্বরে আসেন। 

এর পর গোল চত্বরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন শিক্ষার্থীরা। 

সমাবেশে লিখিত বক্তব্যে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, রোববার বিকেলে শাবিপ্রবির ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া আইআইসিটি ভবনের সামনে বিনা উসকানিতে সুপরিকল্পিতভাবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মদদে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের নিষ্ঠুর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশ লাঠিচার্জ করে। শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য করে পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেট ও সাউন্ড গ্রেনেডের কারণে আহত হয়েছে অন্তত ৪০ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যা ২০ এর বেশি।

তারা বলেন, বর্তমানে কোনো শিক্ষার্থীই এ উপাচার্যের দায়িত্বে থাকাকালে ক্যাম্পাসে নিরাপদ বোধ করছে না। উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদের অবিলম্বে পদত্যাগ এবং হামলার সময় দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ প্রক্টরিয়াল বডি এবং ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালকেরও বিনাশর্তে পদত্যাগ করতে হবে। এ ছাড়াও শিক্ষার্থীরা সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে হল ছাড়তে প্রশাসনের নির্দেশ প্রত্যাখ্যান করছে।

অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক বিষয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন। 

তিনি বলেন, ফিজিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. রাশেদ তালুকদারকে প্রধান করে সব ডিন এবং শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. তুলসী কুমার দাস ও রেজিস্ট্রারকে নিয়ে এই কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের অপেক্ষমান তালিকা থেকে ভর্তির তারিখ থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘এ’ বিল্ডিংয়ে ভর্তি কার্যক্রম চলছে। 

কিশোরগঞ্জ থেকে ভর্তি হতে আসা আনোয়ার নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, আন্দোলনে আমাদের ভর্তির এখানে কোনো সমস্যা হচ্ছে না। 

এ বিষয়ে ভর্তি কমিটির সদস্য সচিব সহযোগী অধ্যাপক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল হোসাইনি বলেন, আমরা সকাল নয়টা থেকে সুন্দরভাবে ভর্তি কার্যক্রম চালাচ্ছি। 

তবে সকাল থেকে আবাসিক কিছু শিক্ষার্থীকে হল ছেড়ে যেতে দেখা। 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ও শাহপরাণ হলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এখন তারা হল ছাড়বেন না। হলে থাকা বেশকিছু শিক্ষার্থী আন্দোলনে অংশ নিচ্ছেন।

 

এসকেএইচ//