• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: এপ্রিল ১, ২০১৯, ০৯:৪৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২, ২০১৯, ০৩:৪৪ এএম

উপজেলা নির্বাচন

৪৫৮টির মধ্যে আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের জয় ২১১টিতে   

জাগরণ প্রতিবেদক
৪৫৮টির মধ্যে আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের জয় ২১১টিতে   

পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনের চতুর্থ ধাপ শেষে চেয়ারম্যান পদে ৪৫৮ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের ৩১৮ জন জয় পেয়েছে। আর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয় পেয়েছে ১৩৬ জন। যার বেশির ভাগই আবার আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী।

চার ধাপে মোট ৪৫৮টি উপজেলা পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর মধ্যে ১০৭টি উপজেলার চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেয়েছে। এরা সবাই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের। বাকি যে ৩৫১টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ভোট হয়েছে, সেখানে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা দলের মনোনয়ন না পেয়ে ‘বিদ্রোহী’ হওয়া প্রার্থীদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতার সম্মুখীন হন। ৩৫১ উপজেলার মধ্যে ১৪০টি উপজেলা আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীদের হাতছাড়া হয়। অর্থাৎ, সাধারণ মানুষের সরাসরি ভোটে আওয়ামী লীগের ২১১ জন চেয়ারম্যান পদে জয় পেয়েছেন।

এর বাইরে জাতীয় পার্টি তিনটি এবং জাতীয় পার্টি-জেপি একটি উপজেলায় জয় পেয়েছে। দলীয় নিবন্ধন না থাকায় দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে রাঙামাটিতে জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) ও জনসংহতি সমিতির (জেএসএস-এমএন লারমা) প্রার্থীরা স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করেন। এই জেলার জুরাছড়ি, বরকল ও বিলাইছড়ি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে জেএসএসের প্রার্থীরা জয় পেয়েছে। নানিয়ারচর ও বাঘাইছড়িতে চেয়ারম্যান পদে জিতেছে জেএসএস-এমএন লারমার প্রার্থীরা।

ইসি সচিবালয় থেকে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচন পদে এখন পর্যন্ত ৪৫৮টি উপজেলায় নির্বাচন হয়েছে। এর মধ্যে ৩০টি উপজেলায় ভোট গ্রহণের প্রয়োজন হয়নি। এসব উপজেলার সব পদের প্রার্থীরাই বিনা ভোটে জয়ী হন। এর বাইরে চেয়ারম্যান পদে আরও ৭৭ জন প্রার্থী বিনা ভোটে জয়ী হন। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ১০৭ জন চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেয়েছে।

হা শা/এসএইচএস 

Islami Bank
ASUS GLOBAL BRAND