• ঢাকা
  • রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৪, ২০১৯, ০১:০৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৪, ২০১৯, ০৮:২৫ পিএম

নববর্ষে ইসির পান্তা ভাতের সাথে রুই ভাজা

হাসান শাফিঈ
নববর্ষে ইসির পান্তা ভাতের সাথে রুই ভাজা
নির্বাচন কমিশনের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারসহ অন্যরা অংশ নেন- ছবি : জাগরণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাংলা বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে পান্তা রাখলেও ইলিশ ভাজা রাখেনি নির্বাচন কমিশন সচিবালয়। ইলিশের বদলে পান্তার সঙ্গে রাখা হয় রুই মাছ ভাজা আর নানা রকম ভর্তা। ছিল মুখরোচক শুটকিও।

বাংলা নববর্ষকে বরণ করার জন্য দিনব্যাপী অনুষ্ঠান ও খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

দিবসটি উপলক্ষে ভবনের ভেতরটা সাজানো হয়েছে বাঙালির নানা ঐতিহ্যের অনুসঙ্গ নিয়ে। ইসির অভ্যর্থনার জায়গায় বাঁশের তৈরির ঢালায় লেখা হয়েছে ‘শুভ নববর্ষ’। আর সেখানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদাসহ একজন কমিশনার ছাড়া সবাই অংশ নিয়েছেন। নতুন বছরের প্রথম দিনে নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাড়াও কমিশনার ও নির্বাচন কমিশন সচিবসহ সবাইকে ফুরফুরে মেজাজে দেখা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের ফোয়ারা চত্বরে খানা-দানার ব্যবস্থা করা হয়েছে। বেজমেন্টে আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের।

রোববার (১৪ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টায় অনুষ্ঠান শুরুর কথা থাকলেও তার আগে থেকেই সেখানে ইসির অনেকেই জড়ো হতে থাকেন। সকাল সাড়ে ১০টার একটু আগে সিইসি অনুষ্ঠানস্থলে পৌছান। এরপরই নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম ও নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালু্দ্দীন আহমদ এক সঙ্গে ইসির ফোয়ারা চত্বরে প্রবেশ করেন। এ সময় তারা একসঙ্গে ফটোসেশনেও অংশ নেন। এরপর সকালের নাস্তা গ্রহণ করেন তারা। তবে সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত অন্য কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী অনুষ্ঠানস্থলে উপস্থিত হননি। সকালের নাস্তায় পান্তা  থাকলেও ইলিশ রাখা হয়নি। তার বদলে রুই মাছ ভাজা দেয়া হয়। আরও ছিল শুটকি, আলু, ডাল ভর্তাসহ নানা ধরনের ভর্তা। সঙ্গে ছিল দেশীয় মুরগির তরকারি। ছিল তরমুজও। বুফে স্টাইলে খাবার পরিবেশন করা হয়। আর অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাদের পরিবার নিয়ে অংশ নেন। ‘এসো হে বৈশাখ, এসো হে বৈশাখ’ গানা ছাড়াও দেশাত্বকবোধক নানা গান শুনতে শুনতে তারা সকালের নাস্তা গ্রহণ করেন। এ সময় ছোট-ছেলেমেয়েদের কলরবে মুখরিত হয় ফোয়ারা চত্বর।

কমিশন বৈঠকে বিভিন্ন সময় নোট অব ডিসেন্ট (ভিন্নমত) দেয়া নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালকুদার জাগরণকে বলেন, ইসির সবাই একসঙ্গে নতুন বছর বরণের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পেরে খুব ভাল লাগছে। 

ইসিতে কর্মরতরা চাঁদা নিয়ে এই বৈশাখী উৎসবের আয়োজন করেছেন বলে জানা গেছে।

এইচএস/এসএমএম

Islami Bank