• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২২, ২০২০, ০৮:৩৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২২, ২০২০, ০৮:৩৪ পিএম

সময় পিছিয়ে ব্যালট পেপারে ভোটের দাবি ফখরুলের

জাগরণ প্রতিবেদক
সময় পিছিয়ে ব্যালট পেপারে ভোটের দাবি ফখরুলের
সেমিনারে বক্তব্য রাখেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ● সংগৃহীত

ইভিএম বাদ দিয়ে ব্যালট পেপারে ভোটগ্রহণের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, এজন্য প্রয়োজনে নির্বাচন পিছিয়ে দেয়া হোক।

বুধবার (২২ জানুয়ারি) রাজধানীর একটি হোটেলে অ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স (অ্যাব) এর উদ্যোগে ‘প্রশ্নবিদ্ধ ইভিএমের কারিগরি অপব্যবহারের মাধ্যমে নির্বাচনি ফলাফল কারচুপির সম্ভাব্য সুযোগ’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তব্যকালে তিনি এই দাবি করেন।

ইভিএম পদ্ধতির বিরোধিতার কারণ ব্যাখ্যা করে মির্জা ফখরুল বলেন, মেশিন ব্যবহৃত হয় মানুষের দ্বারা। মেশিনের পেছনের কারা থাকবেন সেটা একটা জরুরি প্রশ্ন। যেহেতু এই মেশিনের পেছনে বর্তমান নির্বাচন কমিশন আছেন এবং এই সরকার রয়েছে যারা পুরো নির্বাচন ব্যবস্থাটাকে পরিচালনা করছে তাদের ওপরে মানুষের কোনও আস্থা নেই। এবারকার দুই সিটি করপোরেশনের পুরো নির্বাচনটা ইভিএম দ্বারা ভোটগ্রহণ করা হবে। আমরা প্রথম থেকে এর আপত্তি জানিয়ে আসছি। নির্বাচন কমিশনেও আমাদের ডেলিগেশন গিয়েছিল। তারাও গিয়ে আপত্তি জানিয়ে এসেছেন।

ফখরুল বলেন, নির্বাচনটা কেনো? নির্বাচনের মূল কারণটি হচ্ছে, একটা প্রতিনিধিত্বশীল সরকার গঠনের জন্য। সেটা জাতীয় সরকারও হতে পারে, স্থানীয় সরকারও হতে পারে। আমরা বলে এসেছি, এই নির্বাচন কমিশন যোগ্য নন, অদক্ষ। বর্তমানে যে অনির্বাচিত সরকার রয়েছেন তাদের আজ্ঞাবহ একটি কমিশন। তারা যে হুকুম করে কমিশন তাই পালন করে। গত নির্বাচনে আমরা পুরোটাই দেখেছি তারা সরকারের দ্বারা পরিচালিত হয়ে নির্বাচন করেছে। ৩০ ডিসেম্বরের ভোট ২৯ তারিখে তারা করে ফেলেছে। এই কমিশনকে বিশ্বাস করবার আর কোনও কারণ থাকতে পারে না।

তিনি বলেন, দেশে একজন ব্যক্তির জন্য যে বিচার আরেক ব্যক্তির জন্য সেরকম বিচার নেই। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সম্পূর্ণ মিথ্যা মামলায় তাকে আটকিয়ে রাখা হয়েছে। যে জামিন তিনি পাওয়ার যোগ্য, যেটা সংবিধানের মধ্যে আছে সেই জামিনও তাকে দেয়া হচ্ছে না শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে। নাজমুল হুদা জামিন পেয়েছেন, মহিউদ্দীন খান আলমগীর জামিন পেয়েছেন, মায়া সাহেব (মোফাজ্জল হোসেন মায়া) জামিন পেয়েছেন। এ রকম অনেকে জামিন পেয়েছেন। অথচ দেশনেত্রীকে জামিন দেয়া হচ্ছে না। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। তার সুচিকিৎসা দরকার তারপরেও বিচার বিভাগ জামিন দিচ্ছে না।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, বিচার বিভাগকে সরকার নিয়ন্ত্রণ করছে।

অ্যাব এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম রিজুর সভাপতিত্বে সেমিনারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, শিক্ষক-কর্মচারি ঐক্য পরিষদের সেলিম ভূঁইয়া প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বিএনপি নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, জহির উদ্দিন স্বপন, অধ্যাপক মামুন আহমেদ, এবিএম মোশাররফ হোসেন, শাম্মী আখতার, আশরাফউদ্দিন বকুল, নেওয়াজ হালিমা আরলী, কাদের গনি চৌধুরী, শামীমুর রহমান শামীম, জেবা খান, রফিকুল ইসলাম, আবদুল হালিম মিঞা, ডা. আবদুস সেলিম, প্রকৌশলী মাহমুদ হোসেন, মিয়া মোহাম্মদ কাইয়ুম, অ্যাবের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আলমগীর হাছিন আহমেদ ছাড়াও যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার কূটনীতিরা উপস্থিত ছিলেন।

টিএস/এসএমএম

আরও পড়ুন