• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২২, ২০২০, ০৮:৪৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২২, ২০২০, ০৮:৪৩ পিএম

প্রার্থীদের সম্পদের তথ্য চেয়ে ইসিকে সুজনের আইনি নোটিশ

জাগরণ প্রতিবেদক
প্রার্থীদের সম্পদের তথ্য চেয়ে ইসিকে সুজনের আইনি নোটিশ

রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনের (ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ) আসন্ন নির্বাচনে আয়কর রিটার্নসহ প্রার্থীদের সম্পদবিবরণীর তথ্য চেয়ে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) আইনি (লিগ্যাল) নোটিশ দিয়েছে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও নির্বাচন  কমিশনের (ইসি) সিনিয়র সচিবকে সুজন সভাপতি এম হাফিজউদ্দিন খান ও সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শাহদীন মালিক এই আইনি নোটিশ দেন।

নোটিশে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ওয়েবসাইটে প্রার্থীদের তথ্য প্রকাশ এবং সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিস থেকে এ সংক্রান্ত তথ্য জানার সুযোগ নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নোটিশ অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে। তা না হলে হাইকোর্টে রিট করা হবে।

নোটিশে স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) নির্বাচন বিধিমালা, ২০১০-এর ৪৮ বিধি অনুসারে আয়কর রিটার্নসহ প্রার্থীদের সম্পদবিবরণীর তথ্য কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশ এবং প্রার্থীদের তথ্য জানতে বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিদের প্রবেশ নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়, ‘‘স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) নির্বাচন বিধিমালা, ২০১০-এর ৪৮ বিধি অনুযায়ী রিটার্নিং অফিসে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় প্রার্থীদের আয়কর রিটার্নসহ সম্পদবিবরণী দাখিল করতে হয়। সিটি করপোরেশন নির্বাচন পরিচালনা ম্যানুয়াল (২০১৯ সংস্করণ) অনুসারে রিটার্নিং অফিসারকে প্রার্থীর সম্পদবিবরণীসহ সব তথ্যের অনুলিপি বেসরকারি সংস্থা বা সংবাদমাধ্যমের জন্য সংরক্ষণের সুযোগ রয়েছে। সে সংক্রান্ত তথ্য ভোটারদের অবহিত করতে এবং কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রচার করার বিধান রয়েছে। কিন্তু কমিশন তা করেনি।

সুজন সভাপতি এম হাফিজউদ্দিন খান ও সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার এর আগে গত ১৩ ও ২১ জানুয়ারি সংগঠনের মাধ্যমে এবং ২১ জানুয়ারি ব্যক্তিগত মেইলের মাধ্যমে ঢাকা সিটি কাউন্সিলর প্রার্থীদের তথ্য চেয়ে ব্যর্থ হয়েছেন বলেও নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।

আইনানুগভাবে সুজনের সভাপতি ও সম্পাদককে প্রার্থীদের সম্পদবিবরণীর তথ্য সরবরাহ করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে (বৃহস্পতিবার-২৩ জানুয়ারি বিকাল ৪টার মধ্যে) কোনও জবাব পাওয়া না গেলে এ বিষয়ে হাইকোর্টে রিট করা হবে বলেও নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

এমএ/এসএমএম 

আরও পড়ুন