• ঢাকা
  • রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০১৯, ০১:৪৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ২, ২০১৯, ০১:৪৭ পিএম

রাজস্ব চাহিদা পূরণে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

জাগরণ প্রতিবেদক
রাজস্ব চাহিদা পূরণে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব

গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে আগামী বছরে ৪২৮ কোটি টাকা রাজস্ব চাহিদা পূরণের প্রস্তাব দিয়েছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি-ডিপিডিসি।

সোমবার (২ ডিসেম্বর) বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ইস্যুতে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনে গণশুনানির তৃতীয় দিনে এই প্রস্তাব দিয়েছে ডিপিডিসি।

একইসঙ্গে পাইকারি পর্যায়ে দাম বাড়ালে গ্রাহক পর্যায়েও সমন্বয়ের আবেদন করে প্রতিষ্ঠানটি।

রোববার (১ ডিসেম্বর) শুনানির দ্বিতীয় দিনে পাইকারি পর্যায়ে দাম বাড়িয়ে খুচরা পর্যায়ে তা সমন্বয়ের প্রস্তাব দেয়, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড-পিডিবি।

বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) বিদ্যুতের পাইকারি দামের বিষয়ে পিডিবির প্রস্তাবিত ২৩ দশমিক ২৭ ভাগ দাম বাড়ার প্রস্তাবের বিপরীতে কমিশনের মূল্যায়ন কমিটি ১৯ দশমিক ৫০ ভাগ দাম বাড়ার সুপারিশ করে। এতে পিডিবির প্রতি ইউনিটে বিদ্যুতের পাইকারি দাম ৯৩ পয়সা বৃদ্ধি পাবে। রোববার (১ ডিসেম্বর) ওই প্রস্তাবের সূত্র ধরে পাইকারির আনুপাতিক হারে খুচরা দাম বাড়ার সুপারিশ করেছে সংস্থাটি। পাশাপাশি পিডিবি খুচরা গ্রাহকদের জন্য ইউনিট প্রতি বিদ্যুৎ বিতরণের মাশুল ২১ শতাংশ বাড়াতে বলেছে।

বর্তমানে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের জন্য ৮৫ পয়সা বিতরণ মাশুল আদায় করে পিডিবি। ২১ শতাংশ বাড়ালে তা এক টাকা পাঁচ পয়সা হবে।

প্রস্তাবনায় বলা হয়, ‘‘পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ও সঞ্চালন মাশুল (হুইলিং চার্জ) বাড়লে তা ‘পাস থ্রো’ পদ্ধতিতে সমন্বয় করতে হবে।’’ পাশাপাশি বিদ্যুতের ডিমান্ড চার্জও বাড়াতে হবে।

গণশুনানিতে ক্যাবসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা অংশ নিচ্ছেন।

এসএমএম