• ঢাকা
  • রবিবার, ০৫ জুলাই, ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭
প্রকাশিত: মার্চ ৬, ২০২০, ০৪:৩৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ৬, ২০২০, ০৪:৩৫ পিএম

‘মে থেকে নিম্নমানের পেট্টোল বিক্রি বন্ধ’

জাগরণ প্রতিবেদক
‘মে থেকে নিম্নমানের পেট্টোল বিক্রি বন্ধ’
প্রতীকী ছবি

নিম্নমানের পেট্টোল বাজারজাত করবে না বলে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ পেট্টোলিয়াম করপোরেশন-বিপিসি। ১ মে (শুক্রবার) থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে। এরই মধ্যে পেট্রোবাংলা ও বিপিসিকে নির্দেশ দিয়েছে জ্বালানি মন্ত্রণালয়।

জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ গণমাধ্যমকে জানান, গত ৮ বছর ধরে জ্বালানি তেলের মান উন্নত করার তাগিদ দিয়ে কোনও সুফল না পাওয়ায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। শিগগিরই এ সংক্রান্ত পরিপত্র জারি করা হবে। 

দেশের গ্যাসক্ষেত্র থেকে আসা কনডেনসেট পরিশোধন করে জ্বালানি উৎপাদন করছে ৩টি সরকারি আর ১৪ বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে নিম্নমানের পেট্টোল উৎপাদন করে ১২টি প্ল্যান্ট। অপরিশোধিত জ্বালানি পেট্টোল পাম্পে বিক্রির প্রমাণও রয়েছে  ওইসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে।

এই সিদ্ধান্দের ফলে আসন্ন মে থেকে মানসম্মত জ্বালানি উৎপাদনকারীরাই কনডেনসেট বরাদ্দ পাবেন বলে জানান জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী।

নিম্নমানের জ্বালানি নিয়ে অসন্তোষ আছে ভোক্তা পর্যায়েও। সম্প্রতি জনস্বার্থে এক রিটের শুনানিতে বিএসটিআইকে জ্বালানি তেলের মান নিশ্চিতের আদেশ দেয় হাইকোর্ট। এ অবস্থায় সরকারের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

দেশের সরকারি ৩ ও বেসরকারি ২ প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা থাকায় নিম্নমানের পেট্টোল উৎপাদন প্রতিষ্ঠান বন্ধ হলেও জ্বালনি খাতে কোনও প্রভাব পড়বে না মন্তব্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।

এসএমএম