• ঢাকা
  • রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২১, ০৪:০৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২১, ২০২১, ০৪:০৮ পিএম

ইন্ডাস্ট্রিতে ভরসা হারাচ্ছেন শাকিব খান!

ইন্ডাস্ট্রিতে ভরসা হারাচ্ছেন শাকিব খান!

শাকিব খানের সিনেমা মানেই হিট। প্রযোজকদের ভরসার বড় জায়গাজুড়ে আছেন তিনি। কিন্তু আজকাল শাকিব খানের সিনেমা আশানুরূপ ব্যবসা করতে পারছে না। ফলে ক্রমেই তার সিনেমার সংখ্যা কমে যাচ্ছে। ২০২০ সালে শাকিব খানের তিনটি সিনেমা মুক্তি পেলেও বলার মতো ব্যবসা করতে পারেনি একটিও। 

দেশের প্রভাবশালী প্রযোজনা সংস্থা শাপলা মিডিয়ার তুরুপের তাস ছিলেন শাকিব খান। এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের বেশ কয়েকটি সিনেমাতে শাকিব খান অভিনয় করছিলেন। পরবর্তী সময়ে শাকিব খানে আস্থা হারিয়ে ফেলে প্রতিষ্ঠানটি। কর্ণধার সেলিম খান নিজের পুত্র শান্ত খানকে নিয়ে বাজি ধরেন। প্রযোজনা করেন বেশ কয়েকটি সিনেমা। পাশাপাশি সম্প্রতি সায়মন সাদিককে নিয়ে তিনটি ছবির ঘোষণা দেয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি।

শাকিব খানের বিকল্প তৈরি করতেই ‘শাকিব বলয়’ ভাঙা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সেলিম খান। তিনি বলেন, “আমরা শাকিব খানে আটকে থাকতে চাই না। এক শাকিবে ইন্ডাস্ট্রি দাঁড়াবে না। নতুন নায়ক তৈরি করতে না পারলে ইন্ডাস্ট্রির ক্ষতি। তা ছাড়া শাকিবের সিনেমাও আজকাল চলছে না।”

এদিকে শাকিব খাননির্ভর প্রযোজক মো. ইকবাল নতুন তিনটি সিনেমার ঘোষণা দিয়েছেন, যেগুলোর একটিতেও অভিনয় করছেন না শাকিব খান। যদিও সংশ্লিষ্টরা ভেবেছিলেন, দুনিয়া উল্টে গেলেও ইকবালের ছবিতে শাকিব থাকবেন। 

নতুন ছবিগুলোতে শাকিব খানকে না নেওয়ার ব্যাপারে ইকবাল বলেন, “শাকিব সব সময় ১ নম্বর নায়ক। তাকে ছাড়া ইন্ডাস্ট্রি কল্পনা করা যায় না। আমি চাই নতুনদের সুযোগ করে দিতে। শাকিবের বিকল্প কেউ আসবে না। কিন্তু তার পাশাপাশি কেউ যেন ইন্ডাস্ট্রিতে এগিয়ে নিতে পারে, সে জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছি।”

শাকিব খান অভিনীত প্রথম মুক্তি পাওয়া ছবি ‘অনন্ত ভালোবাসা’ ছবির পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান। তার কাছে প্রশ্ন ছিল, শাকিব খান কি ভরসা হারাচ্ছেন? উত্তরে তিনি বলেন, “শাকিব খানের পর তেমন কোনো অভিনয়শিল্পী আসেননি; যার ওপর পরিচালক ভরসা করতে পারেন। অনেক শিল্পী দেখি এফডিসিতে ঘোরাঘুরি করেন। কিন্তু প্রকৃত শিল্পীর বড় অভাব। এই অভাবের কারণে শাকিব খানকে নিয়ে বাধ্য হয়ে সিনেমা নির্মাণ করতে হচ্ছে। এছাড়া তো উপায় নেই। তবে এখন শাকিবের সিনেমাও তেমন চলছে না। চিরদিন একজন মানুষের ওপর ভরসা করা যায় না।”

তিনি আরো বলেন, “শাকিব খান বাদ দিলে এখন সেভাবে কোনো নায়ক নেই, যাকে নিয়ে বাজি ধরা যায়। তবে সিয়ামের কথা বলা যায়। ভালো করছে ছেলেটি। কিন্তু তিনি একটু বেশি দৌড়াচ্ছেন। এতে করে হঠাৎ খাদে পড়ে যাওয়ার শঙ্কা প্রবল। রোশানও ভালো নায়ক। ওদেরকে শাকিব খানের বিকল্প হয়ে ওঠা প্রয়োজন। 

এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট অনেকে মনে করেন, একজন নায়কের কাঁধে ইন্ডাস্ট্রি; কখনোই চলচ্চিত্রের জন্য সুফল বয়ে আনে না। এমনকি ইন্ডাস্ট্রি টিকিয়ে রাখা যায় না। ইন্ডাস্ট্রি টিকিয়ে রাখতে দরকার পর্যাপ্ত মানসম্মত শিল্পী। শাকিবের রাজত্বের ক্রান্তিলগ্নে নতুনদের হাল ধরতে হবে শক্ত হাতে।