• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
প্রকাশিত: অক্টোবর ২৫, ২০২১, ০১:৫৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ২৫, ২০২১, ০১:৫৯ পিএম

শেষ হলো তরুণ নির্মাতাদের দুই দিনের কর্মশালা

শেষ হলো তরুণ নির্মাতাদের দুই দিনের কর্মশালা
কর্মশালায় অংশ নেয়া তরুণ নির্মাতা ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ ● ফটো রিলিজ

শেষ হলো দেশের ২০ জন তরুণ নির্মাতাদের নিয়ে ‘ওয়ার্কশপ এনকারেজিং ফিল্ম অ্যন্ড ওয়েব কন্টেন্ট অন সোশাল ইস্যু’—শীর্ষক দুই দিনের কর্মশালা।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) ঢাকার অদূরে পূর্বাচলের একটি রিসোর্টে আয়োজিত ২ দিনের রেসিডেন্টশিয়াল ওয়ার্কশপের শেষ দিনে উপস্থিত ছিলেন ওটিটি প্লাটফর্ম বঙ্গের হেড অব লাইসেন্সিং ও ডেস্ট্রিবিউটিং ক্যারোলিন হোপনার ও চিফ কন্টেন্ট অফিসার মুশফিকুর রহমান ।

কর্মশালায় একাধিক আন্তর্জাতিক পুরস্কারপ্রাপ্ত ‘মাটির প্রজার দেশে’র নির্বাহী প্রযোজক আরিফুর রহমানের নির্দেশনায় এই ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণকারীরা মৌলিক গল্পের স্টোরি তৈরি করেন। যার পিচিংয়ের মাধ্যমে শেষ হয় এই কর্মশালা।

এই আয়োজনে উপস্থিত ছিল ওটিটি প্লাটফর্ম বঙ্গ ও চরকি’র  ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

রোববার (২৪ অক্টোবর) চরকির চিফ অপারেটিং অফিসার ও চলচ্চিত্র নির্মাতা রেদওয়ান রনির সেশনের মাধ্যমে শেষ হয় প্রথমদিনের কর্মশালা। এ দিন উপস্থিত ছিলেন চরকি’র কন্টেন্ট অফিসার আদর রহমান।

অংশগ্রহণকারীদের তরুণ নির্মাতা মাসুদ বলেন, ‘এর আগে ফেস্টিভ্যাল অথবা ইউটউবের কন্টেন্ট নিয়ে ধারণা ছিল। এই কর্মশালার মাধ্যমে ওটিটি প্লাটফর্মগুলোর সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পেরেছি। যা ভবিষ্যতে চলচ্চিত্র নির্মাণের ক্ষেত্রে সাহায্য করবে।’

তরুণ নারী নির্মাতা নেহা বলেন, ‘এই ওয়ার্কশপটিতে কন্টেন্ট তৈরির অনেক কিছু হাতে -কলমে করতে হয়েছে। যার মাধ্যমে অনেক কিছু শিখতে পেরেছি।’

এর আগে এউএস ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের অ্যালমোনাই টাইস ইন্টারন্যাশনাল এক্সচেঞ্জ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় ২০১৯ সালের নভেম্বরে কাজাকিস্থানে। যেখানে অংশ নেন বাংলাদেশের তিনজন প্রতিনিধি সহ সারাবিশ্বের ৩২ জন প্রতিনিধি। সেই সেমিনার থেকে এই ওয়ার্কশপের সূচনা হয়। যেখানে আয়োজিত গ্রান্ট কম্পিটশনে নির্বাচিত শাহলা ইসলাম রোদশীর পরিকল্পনায়  এই কর্মশালা পরিচালনা হয়। এরই সাথে সহযোগিতায় রয়েছে ড্রিম অন ও ফাইনাল ড্রাফট।

অংশগ্রহণকারীরা ফাইনাল ড্রাফট থেকে এক বছরের সফটওয়ার পাচ্ছে উপহার হিসেবে।

ওয়ার্কশপের প্রজেক্ট লিড শাহলা ইসলাম রোদশী জানান, পরবর্তীতে এই কর্মশালার অংশ হিসেবে নির্মাণ করা হয় চলচ্চিত্রভিত্তিক কিছু অনলাইন কোর্সও। যাতে অংশগ্রহণকারীরা ক্লাস করতে পারবেন। থাকবে অনলাইন ভিত্তিক কন্টেন্ট মার্কেট যার সেতু তৈরি হবে চলচ্চিত্র নির্মাতারা, ওটিটি, টেলিভিশন ও বিভিন্ন ব্রান্ডের মধ্যে।

জাগরণ/এমএ/এসএসকে

আরও পড়ুন