• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২২, ২০২৩, ১১:২৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২২, ২০২৩, ০৫:২৪ পিএম

‘নোরা আমাকে বিরক্ত করতেন’

‘নোরা আমাকে বিরক্ত করতেন’
ছবি ● সংগৃহীত

২০০ কোটি টাকা তছরুপের অভিযোগে সুকেশ চন্দ্রশেখর বর্তমানে দিল্লির ম্যান্ডলি জেলে রয়েছেন। সুকেশের একটি চিঠি প্রকাশ্যে এসেছে , যেখানে তিনি নোরা ফাতেহির বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করেছেন।

সুকেশ চিঠিতে জানিয়েছেন যে তিনি এবং জ্যাকলিন দুজনেই সম্পর্কে ছিলেন। আর সেই সম্পর্ক নিয়ে নোরা হিংসা করতেন। শুধু তাই নয়, নোরা সুকেশকে দিনে দশ বার ফোন দিতেন।

সুকেশের দাবি, ‘আমি নোরাকে এড়িয়ে চলতাম। কিন্তু নোরা আমাকে বিরক্ত করতেন। এক প্রেস বিবৃতিতে সুকেশ এই কথা জানান।

সুকেশ আরও জানান, নোরা জ্যাকলিনের বিরুদ্ধে নানা কথা বলতেন এবং তার সঙ্গে সম্পর্কে জড়াতে চাইতেন। সুকেশকে দামী ব্যাগ এবং গহনার ছবিও পাঠাতেন। সেগুলো উপহার পেতে চাইতেন তিনি।

সুকেশ আরও জানান নোরা তার বোনের স্বামী ববির জন্য একটি মিউজিক কোম্পানিও তৈরি করতে দিতে বলেছিলেন। তিনি সেই বিষয়ে সাহায্যও করেছিলেন। একই সঙ্গে অভিনেত্রী নাকি তার থেকে বহু অর্থ নিয়েছেন মরক্কোতে জমি কেনার জন্য।

গত শনিবার দিল্লির একটি আদালত জ্যাকলিন ফার্নান্দেজের বিরুদ্ধে নোরা ফাতেহির আবেদন স্থগিত করেছে। নোরার দায়ের করা মানহানির মামলার শুনানি হতে পাবে আগামী ২৫শে মার্চ। অকারণে ২০০ কোটির আর্থিক তছরুপ মামালায় নোরার নাম জড়িয়েছেন জ্যাকলিন, এমন অভিযোগ করেছেন নোরা। নোরা দাবি করেছেন সুকেশের কাছ থেকে তিনি দামি দামি উপহার নিয়েছেন জ্যাকলিনের এই দাবি ‘ভুয়ো’। বলেছেন, একবার মাত্রই সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে কথা হয়েছিল তার। এনডিটিভি।

জাগরণ/বিনোদন/বলিউড/এসএসকে