• ঢাকা
  • রবিবার, ০৭ জুন, ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ২০, ২০২০, ০১:২৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২০, ২০২০, ০১:২৫ পিএম

আম্ফান

সাড়ে ১৩ লাখ মানুষ, আড়াই লাখ গবাদিপশু আশ্রয়কেন্দ্রে

জাগরণ প্রতিবেদক
সাড়ে ১৩ লাখ মানুষ, আড়াই লাখ গবাদিপশু আশ্রয়কেন্দ্রে
খুলনায় আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যেতে মাইকিং ● সংগৃহীত

‘আম্ফান’ থেকে রক্ষার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এরই মধ্যে উপকূলীয় এলাকাগুলো থেকে ১৩ লাখ ৬৪ হাজার মানুষকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ২ লাখ ৫১ হাজার বেশি গবাদিপশুও সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

উপকূলের ১৯টি জেলায় এই কার্যক্রম চালানো হয়েছে।

রাতের মধ্যেই সবাইকে আশ্রয়কেন্দ্রে চলে আসার আহ্বান জানানো হয়। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বক্ষণিক দুর্যোগ পরিস্থিতি মনিটরিং করছেন।

এরই মধ্যে আমফানের প্রভাব পড়তে শুরু হয়েছে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি শুরু হয়েছে এসব এলাকায়।

কিছুটা দুর্বল হয়ে সুপার সাইক্লোন থেকে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে আম্ফান। এগিয়ে আসছে উপকূলের দিকে। 

ঘূর্ণিঝড় কিছুটা দুর্বল হলেও মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরে ৯ নম্বর মহাবিপৎসঙ্কেত জারি করা হয়েছে। 

আমফানের কেন্দ্রের কাছে সাগর বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

ঝড়ে উপকূলীয় জেলাগুলোতে স্বাভাবিকের চেয়ে ৫ থেকে ১০ ফুটের বেশি উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন আবহাওয়াবিদরা।

এসএমএম

 

আরও পড়ুন