• ঢাকা
  • রবিবার, ০৭ জুন, ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ২০, ২০২০, ০১:৩১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২০, ২০২০, ০১:৩১ পিএম

আম্ফান

খুলনাঞ্চলে বৃষ্টির সাথে বইছে দমকা হাওয়া, বাড়ছে পানি

জাগরণ ডেস্ক
খুলনাঞ্চলে বৃষ্টির সাথে বইছে দমকা হাওয়া, বাড়ছে পানি
সংগৃহীত ছবি

খুলনা উপকূলের কাছাকাছি চলে এসেছে সুপার সাইক্লোন ‘আম্পান’।

আবহাওয়া অধিদফতর এরই মধ্যে মোংলা এবং পায়রা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপৎসঙ্কেত দেখিয়ে যেতে বলেছে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ১০ থেকে ১৫ ফুট জলোচ্ছ্বাস হতে পারে বলেও সতর্ক করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে এখন বৈরি আবহাওয়া বিরাজ করছে খুলনাঞ্চল জুড়ে। বৃষ্টির সাথে বইছে দমকা হাওয়া। বিভিন্ন স্থানে ক্ষণে ক্ষণে ভারী বৃষ্টিও হচ্ছে ।

সময় যত যাচ্ছে বাতাসের তীব্রতা ততই বাড়ছে। নদীতে জোয়ারের পানি বাড়ছে এবং উত্তাল অবস্থা বিরাজ করছে। মোংলা বন্দরসহ আশপাশের নদীর নৌযানগুলো নদীর পাড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে রাখা হয়েছে।

সকাল থেকে ভারী বৃষ্টিপাত এবং দমকা হাওয়া লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

কয়রা উপজেলার কয়রা সদর, উত্তর বেদকাশী এবং দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের কয়েক জায়গা দিয়ে বেড়িবাঁধ উপচে পানি প্রবেশ করেছে লোকালয়ে। স্থানীয় মানুষ বেড়িবাঁধের উপর মাটি দিয়ে পানি আটকানোর চেষ্টা করেছে। তবে আজকের আমাবশ্যার জোয়ারে বাঁধ ভেঙে যাওয়ার শঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় লোকজন।

সুন্দরবন সংলগ্ন খুলনা জেলার কয়রা, দাকোপ ও পাইকগাছা উপজেলাসহ আশপাশের অঞ্চলে বয়ে চলেছে দমকা হাওয়া, হচ্ছে বৃষ্টিপাত। স্থানীয় নদ-নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ২-৩ ফুট উচ্চতায় বয়ে চলেছে।

দাকোপ ও কয়রা উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকার জনসাধারণ আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান  নিয়েছেন।

খুলনা জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবেলায় খুলনায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে ৩৪৯টি আশ্রয় কেন্দ্র। এছাড়াও জেলার প্রত্যন্ত এলাকায় যেসব পাকা ভবন ও স্কুল কলেজ ভবন রয়েছে সেগুলোকেও আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত করা হয়েছে। এসবে আশ্রয় নিতে পারবেন প্রায় ৫ লাখ মানুষ।

খুলনা সিভিল সার্জন অফিস ৯টি উপজেলায় ১১৬টি মেডিকেল টিম গঠন করেছে। লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে মাইকিং চলছে। মানুষ নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে শুরু করেছে।

খুলনা আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ আমিরুল আজাদ বলেন, মঙ্গলবার দুপুর ১টা থেকে বুধবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ২৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

সুপার সাইক্লোন আম্পান বুধবার (২০ মে) সন্ধ্যা নাগাদ সুন্দরবনের নিকট দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। ইউএনবি।

এসএমএম

আরও পড়ুন