• ঢাকা
  • সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ২০, ২০২০, ০৭:৫২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২০, ২০২০, ০৭:৫২ পিএম

দেশের উপকূল অতিক্রম করছে আম্ফান

জাগরণ ডেস্ক
দেশের উপকূল অতিক্রম করছে আম্ফান
সংগৃহীত ছবি

দেশের উপকূল অতিক্রম করছে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান। ভারতের পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশের সুন্দরবন দিয়ে প্রবেশ করেছে আম্পান।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে রাত ৮টার মধ্যে বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করে যাবে ঘূর্ণিঝড়টি।

ঘূর্ণিঝড় আম্ফান সাগর উপকূলের পূর্ব দিকে সুন্দরবন ঘেঁষা পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ দিয়ে অতিক্রম করছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৮৫ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৮০ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। অতিক্রমের সময় বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৬০ থেকে ১৮০ কিলোমিটারের মধ্যে রয়েছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদফতর।

সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্রে বাতাসের সর্বোচ্চ গতি ২০০ কিলোমিটার যা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ঘণ্টায় ২২০ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে। এ অবস্থায় পায়রা ও মোংলা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপৎসঙ্কেত এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরে ৯ নম্বর বিপৎসঙ্কেত জারি রয়েছে।

আম্ফানের প্রভাবে সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, বরিশাল, বরগুনা, নোয়াখালী, ভোলা, চট্টগ্রাম ও এর আশপাশের দ্বীপে ১৫ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদফতর।

এর আগে বিকাল ৫ টার দিকে পশ্চিমবঙ্গে আঘাত হানে আম্পান। স্থলভাগে উঠে আসার প্রক্রিয়ার মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকায় তাণ্ডব চালাচ্ছে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্ফান। সেই সঙ্গে ভারত ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকাজুড়ে চলছে তুমুল বৃষ্টি। স্থলভাবে উঠে আসার পর বৃষ্টি ঝরিয়ে কমতে শুরু করবে ঝড়ের শক্তি। তবে এগোনোর গতি থামবে না।

ভারতের আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী, আম্ফান আঘাত হানার সময় বাতাসের গতি ছিল ঘণ্টায় ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটারের মধ্যে। সে সময় এর অবস্থান ছিল ভারতের সাগরদ্বীপ থেকে ৩৫ কিলোমিটার, দীঘা থেকে ৬৫ কিলোমিটার এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ২২৫ কিলোমিটার দূরে।

এসএমএম

আরও পড়ুন