• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২০, ৬ মাঘ ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: মে ১৬, ২০১৯, ০৯:৩০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৬, ২০১৯, ০৯:৩০ পিএম

লন্ডনে কাউন্সিলের ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত আহবাব

আব্দুর রশিদ, লন্ডন
লন্ডনে কাউন্সিলের ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত আহবাব

ব্রিটিশ রাজনীতিতে বেড়েই চলছে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূতদের অংশগ্রহণ। বিশেষ করে ব্রিটেনের বাঙালি অধ্যুষিত এলাকায় বসবাসকারী ব্রিটিশ বাংলাদেশীরা মেইন স্ট্রিম রাজনীতিতে অংশগ্রহণের ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে উঠছেন। বাঙালি অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটস বারায় সর্বোচ্চ সংখ্যক ব্রিটিশ বাংলাদেশীদের বসবাস। এই টাওয়ার হ্যামলেটস এলাকার বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো সংসদীয় আসন থেকেই প্রথম বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত রোশনারা আলী ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এমপি নির্বাচিত হন। আর এই টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলে ব্রিটিশ বাঙালিদের অংশগ্রহণ অনেকদিন থেকেই। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত কাউন্সিলর আহবাব হোসেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হয়েছেন। ১৫ মে বুধবার রাতে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলের এজিএমে তিনি ডেপুটি স্পীকার হিসেবে নির্বাচিত হন। স্পিকার নির্বাচিত হয়েছেন কাউন্সিলর ভিক্টোরিয়া ওবাজি। কাউন্সিলর ভিক্টোরিয়া ওবাজি প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মহিলা হিসেবে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের স্পিকার নির্বাচিত হলেন।

বেথনাল গ্রিনের বাসিন্দা কাউন্সিলর আহবাব হোসেন ২০১৮ সালের ৩ মে অনুষ্ঠিত স্থানীয় কাউন্সিল নির্বাচনে লেবার পার্টি থেকে কাউন্সিল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। তিনি তার স্থানীয় বেথনাল গ্রিন ওয়ার্ড থেকে সর্বোচ্চ সংখ্যক ভোট পেয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। তার প্রাপ্ত ভোট ছিল ২৯১৬ টি যা অন্য যে কোন কাউন্সিলর থেকে বেশি।

কাউন্সিলর আহবাব হোসেনের জন্ম ১৯৬৩ সালে সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার প্রভাকরপুর গ্রামে। পিতা মদরিছ আলী এবং মাতা শিরীয়া খাতুনের ৪ ছেলে এবং ২ মেয়ের মধ্যে আহবাব সবার বড়। আহবাব সিলেট এইডেড স্কুল থেকে এসএসসি পাস করে সিলেট মদন মোহন কলেজে লেখাপড়া করেন। ছাত্র জীবন থেকেই তিনি রাজনীতি সচেতন। কলেজে অধ্যায়নরত অবস্থায় তিনি সিলেট জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

১৯৯৬ সালে আহবাব হোসেন বিলাতে পাড়ি জমান। তিনি শুরু থেকেই বাঙালি অধ্যুষিত পূর্ব লন্ডনেই বসবাস করতে থাকেন। বৃটেনে আসার পর থেকেই তিনি সামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। পূর্ব লন্ডনে অনুষ্ঠিত সামাজিক, রাজনৈতিক এবং কমিউনিটির সব ধরণের কাজ কর্মে আহবাব হোসেন ছিলেন অগ্রণী। কমিউনিটির লোকজনের প্রয়োজনে আহবাব একজন নিবেদিত প্রাণ। বেথনাল গ্রিনে নব নির্মিত বায়তুল আমান মসজিত প্রতিষ্ঠায় তিনি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। পরে আহবাব বৃটেনের মেইন স্ট্রিম দল লেবার পার্টিতে যোগদান করেন। ২০১৮ সালে তিনি প্রথম বারের মত কাউন্সিল নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিপুল ভোটে (সবার মধ্যে সর্বাধিক ভোট পান) কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।

২ মেয়ে এবং ১ ছেলের পিতা আহবাব হোসেনের প্রেরণা আরেক উৎস হচ্ছেন তার স্ত্রী রহিমা বেগম। বড় ছেলে কুইন মেরি ইউনিভার্সিটিতে গণিত বিষয়ে পড়াশুনা করছে, মেয়েরা সেকেন্ডারি স্কুলে অধ্যয়নরত।

এসজেড