• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: এপ্রিল ১১, ২০১৯, ০৬:৪১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৩, ২০১৯, ০৮:২৯ পিএম

মানসম্মত মানসিক স্বাস্থ্য সেবায় দক্ষ

জনশক্তির প্রতি গুরুত্বারোপ সায়েমা ওয়াজেদের

জাগরণ প্রতিবেদক
জনশক্তির প্রতি গুরুত্বারোপ সায়েমা ওয়াজেদের
সভায় জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য কৌশলপত্র প্রণয়ন সংক্রান্ত ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রধান উপদেষ্টা এবং ন্যাশনাল এডভাইজারি কমিটি অন অটিজম এন্ড নিউরোডেভেলপমেন্টাল ডিজঅর্ডার-এর চেয়ারপার্সন সায়মা ওয়াজেদ হোসেন- ছবি :জাগরণ

কেবল অবকাঠামো নয়, উন্নত ও মানসম্মত মানসিক স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতে প্রশিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তির প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য কৌশলপত্র প্রণয়ন সংক্রান্ত ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রধান উপদেষ্টা এবং ন্যাশনাল এডভাইজারি কমিটি অন অটিজম এন্ড নিউরোডেভেলপমেন্টাল ডিজঅর্ডার-এর চেয়ারপার্সন সায়মা ওয়াজেদ হোসেন।

বৃহস্পতিবার (১১ এপ্রিল) স্বাস্থ্য অধিদফতরের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য কৌশলপত্র প্রণয়ন সংক্রান্ত ওয়ার্কিং গ্রুপের সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি মানসিক স্বাস্থ্য সেবার মানোন্নয়নে সংশ্লিষ্ট পেশাজীবীদের প্রশিক্ষণের উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন। পাশপাশি মানসিক স্বাস্থ্য আইন বাংলাদেশ ২০১৮ এবং খসড়া মানসিক স্বাস্থ্যনীতির আলোকে স্ব স্ব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মানসিক স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমসমূহ ‘জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য কৌশলপত্রে’ অন্তর্ভুক্ত করার আহ্বান জানান সায়মা ওয়াজেদ হোসেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ সভাপতির বক্তব্যে বলেন, জনগণের সার্বিক স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে হলে মানসম্মত মানসিক স্বাস্থ্য সেবার বিকল্প নেই।

তিনি এ বিষয়ে দীর্ঘমেয়াদী কর্মকৌশল প্রণয়ন এবং এর বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সকলের সক্রিয় অংশগ্রহণ কামনা করেন।

সভায় বাংলাদেশের মানসিক স্বাস্থ্য সেবার বিদ্যমান পরিস্থিতি এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আলোচিত হয়। সভায় জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য কৌশলপত্র প্রণয়ন সংক্রান্ত টেকনিক্যাল টাস্ক টিমের কার্যপরিধি সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে চিকিৎসদের দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষণ, প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবায় মানসিক স্বাস্থ্য সেবা অন্তর্ভুক্তকরণ, আত্মহত্যা প্রতিরোধ, মানসিক স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নের মাধ্যমে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের কর্মকৌশল আলোচিত হয়। এছাড়া স্বাস্থ্য ব্যতীত অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন কার্যক্রমের মধ্যে মানসিক স্বাস্থ্য সেবার বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনার করার কথা উল্লেখ করা হয়। 

সভায় অন্যান্য আলোচকের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- ওয়ার্কিং গ্রুপের সমন্বয়ক স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (স্বাস্থ্যসেবা) সুভাষ চন্দ্র সরকার, এনডিডি প্রোটেকশন ট্রাস্টি বোর্ড এর চেয়ারপারসন অধ্যাপক গোলাম রব্বানীসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও দাতা সংস্থার প্রতিনিধিরা।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ পূর্ব এশীয় অঞ্চলের মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ডা. নাজনীন আনোয়ারও স্কাইপের মাধ্যমে সভায় সংযুক্ত হন।

আরএম/টিএফ