• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৭, ২০১৯, ০৫:৪৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৭, ২০১৯, ১১:৪৫ পিএম

স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী অবাক

উপজেলায় ৯০ ভাগ হাসপাতালে থাকে না থার্মোমিটার!

জাগরণ প্রতিবেদক
উপজেলায় ৯০ ভাগ হাসপাতালে থাকে না থার্মোমিটার!
ইউএনএফপিএ এর ‘স্টেট অফ ওয়ার্ল্ড পপুলেশন রিপোর্ট ২০১৯’ এর বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিক প্রকাশ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান

বাংলাদেশে উপজেলা পর্যায়ে মাত্র ১০ শতাংশ হাসপাতালে থার্মোমিটার পাওয়া যাচ্ছে। বাকি ৯০ শতাংশ হাসপাতালে থার্মোমিটার পাওয়া যায় না। স্বাস্থ্য জরিপে উঠে আসা এ তথ্য সাংবাদিকদের কাছে থেকে শুনে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান নিজেও অবাক।

বুধবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে (বিআইসিসি) ইউএনএফপিএ এর ‘স্টেট অফ ওয়ার্ল্ড পপুলেশন রিপোর্ট ২০১৯’ এর বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিক প্রকাশ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানের সংবাদ সম্মেলন অংশে এক সাংবাদিক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন ‘ সর্বশেষ বাংলাদেশের স্বাস্থ্য জরিপে দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য পরিস্থিতি খুবই খারাপ। বাংলাদেশের স্বাস্থ্য সুবিধা আরও অনেক খারাপ । ১০ শতাংশ হাসপাতালে থার্মোমিটার পাওয়া যাচ্ছে। ৭৮ শতাংশ হাসপাতালে এক্সরে মেশিন সচল পাওয়া যাচ্ছে না।’ এ বিষয়ে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর করণীয় কি? 

জবাবে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এতে আমি খুবই অবাক, যদি এ রকম হয়েই থাকে। আসলে একটা থার্মোমিটার সাপ্লাই করার মত সক্ষমতা তো আমাদের সরকারের রয়েছে। হয়তো এটা মিসিং হয়েছে অথবা ওই সময়ে (জরিপের সময়ে) পাওয়া যায়নি।’ এরপর তিনি বলেন, ‘এমন তথ্য আমার ও সরকারের জন্য অনেক ব্যথাদায়ক।’ ‘আমার মনে হয় যারা সার্ভে করেছে তারা বিষয়টি ভালভাবে উপস্থাপন করে নি।’ 

জরিপে পাওয়া ৭৮ শতাংশ এক্সরে মেশিন নষ্ট এমন তথ্য শুনে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা সরেজমিনে গিয়ে এ বিষয়ে খোঁজ নেব। আমরা প্রত্যক্ষভাবে এ বিষয়ে তদারকি করবো। খুব দ্রুত এ বিষয়ে তথ্য দেব।   

এর আগে ইউএনএফপিএ এর স্টেট অফ ওয়ার্ল্ড পপুলেশন রিপোর্ট ২০১৯ বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিক প্রকাশ করা হয়। 

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশে ইউএনএফপি’র প্রতিনিধি ড. ওয়াসা টার্কেনশন, বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পো, বাংলাদেশের আইসিপিডি অর্জন নিয়ে বক্তব্যে রাখেন বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের প্রফেসর ড. মোজাফফর আহমেদ।       

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পো বলেন, নারীর প্রতি সহিংসতা একটি বিশ্বজনীন সমস্যা। এটা এ দেশের সমস্যা শুধু নয়। তবে নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধ না হলে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব হয় বলেও এ সময় উল্লেখ করেন তিনি।  বাংলাদেশের ফেনীর সোনাগাজীতে সম্প্রতি বর্বরোচিত নুসরাত জাহান রাফি হত্যার প্রসঙ্গ তুলে তিনি আরও বলেন, এ হত্যাকাণ্ড এ দেশের মানুষকে অনেক তাড়িত করেছে। বিষয়টিতে সোচ্চার হয়েছে মানুষ।

বাংলাদেশ সরকার স্কুল, কমিউনিটি স্বাস্থ্য পরিচর্যা কেন্দ্র সহ সব অনেক বিষয়েই সারা বিশ্বের মধ্যে অন্যতম সফল হয়েছেন বলে নিজ বক্তব্যে বলেন বাংলাদেশে ইউএনএফপি‘র প্রতিনিধি ড. ওয়াসা টার্কেনশন। তিনি বলেন, এসব বিষয়ে বাংলাদেশ বিশ্বের অন্য দেশগুলোর সঙ্গে তার সফলতা ভাগাভাগি করতে পারে। 

এএইচএস/আরআই

Islami Bank