• ঢাকা
  • বুধবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৯, ৮ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯, ০৭:৩৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯, ০৭:৩৫ পিএম

নিষিদ্ধ নয়, বাংলাদেশে সাময়িক স্থগিত রেনিটিডিন

জাগরণ প্রতিবেদক
নিষিদ্ধ নয়, বাংলাদেশে সাময়িক স্থগিত রেনিটিডিন

নিষিদ্ধ নয়, সাময়িক স্থগিত করা হয়েছে গ্যাস্ট্রিকের চিকিৎসায় বহুল ব্যবহৃত রেনিটিডিন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি ও উৎপাদন। যদিও এরই মধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ রেনিটিডিন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি, উৎপাদন ও বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশ ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর।

ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান জানান, গত ২২ সেপ্টেম্বর (রোববার) ডা. রাডি (Dr. Reddy) তাদের প্রতিষ্ঠান কর্তৃক উৎপাদিত রেনিটিডিন সরবরাহ স্থগিত করেছে। ইউএসএফডিএ বলছে, রেনিটিডিন নির্ধারিত মাত্রার ওপরে দীর্ঘ মেয়াদে গ্রহণ করলে মানুষের শরীরে ক্যান্সার হতে পারে।

এর প্রেক্ষিতে রোববার ( ২৯ সেপ্টেম্বর) ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর বৈঠক করে ওষুধ শিল্প সমিতির নেতাদের সাথে। সভায় ৫টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সিদ্ধান্তগুলো হলো-

১. ভারতের মেসার্স সারাকা ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড এবং ডা. রাডি নামক কাঁচামাল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান দুটি থেকে আমদানিকৃত রেনিটিডিন হাইড্রোক্লোরাইড কাঁচামাল দ্বারা রেনিটিডিন জাতীয় সব ধরনের ডোসেজ ফর্মের ওষুধ উৎপাদন সাময়িকভাবে স্থগিত করা হল।

২. এরই মধ্যে উল্লিখিত সোর্স দুটি হতে আমদানিকৃত রেনিটিডিন হাইড্রোক্লোরাইড কাঁচামাল দ্বারা উৎপাদিত সব ওষুধ কোয়ারেন্টাইন করে রাখতে হবে, বিক্রয় এবং বিতরণ করা যাবে না।

৩. উল্লিখিত সোর্স হতে রেনিটিডিন হাইড্রোক্লোরাইড কাঁচামাল আমদানি করা যাবে না।

৪. সংশ্লিষ্ট ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আমদানিকৃত রেনিটিডিন হাইড্রোক্লোরাইড-এ N-nitrosodimethylamine (NDMA) এর মাত্রা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ল্যাবরেটরির মাধ্যমে পরীক্ষা করে Certificate of Analysis Report ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরে দাখিল করতে হবে।

৫. এ বিষয়ে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর কর্তৃক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে এবং অন্যান্য রেগুলেটরি অথরিটি (যেমন- USFDA, EMA, Health Canada, EDQM, HPRA, CDSCO) কর্তৃক গৃহীত ব্যবস্থার আলোকে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আরএম/এসএমএম

আরও পড়ুন